• সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মাজরা পোকায় কাটছে কৃষকের স্বপ্নের বুনন

  রয়েল আহমেদ, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ)

২৫ আগস্ট ২০২১, ১৪:৫৭
জমিতে আমন চাষ
জমিতে আমন চাষ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় আমন ধানের খেতে ব্যাপকভাবে মাজরা পোকা আক্রমণ করেছে। মাজরা পোকা দমনে ব্যর্থ হওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকেরা। পোকা দমন বা নিধনে উপজেলা কৃষি অফিসের কোনো ধরনের সহায়তা পাচ্ছেন না বলে কৃষকদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের বড় মৌকুড়ি, ছোট মৌকুড়ি, নবগ্রাম, সারুটিয়াসহ কয়েকটি গ্রামের প্রায় সব জমির আমন ধানের গাছে ব্যাপকভাবে মাজরা পোকা আক্রমণ করেছে। মাজরা পোকার আক্রমণের কারণে অধিকাংশ ধান গাছের পাতা মরে হলুদ রং ধারণ করেছে। কোনো কোনো জমির ধানগাছ প্রায় পাতাশূন্য মাটিতে মিশে যাচ্ছে। মাজরা দমনে কৃষকেরা বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক ব্যবহার করেও কোনো সুফল পাচ্ছেন না।

বড় মৌকুড়ি গ্রামের কৃষক নিয়ামত আলী বলেন, এ বছর তিনি প্রায় ৫ বিঘা জমিতে ব্রি ৩৩ জাতের আমন ধান চাষ করেছেন। তারসহ গ্রামের অধিকাংশ কৃষকের জমিতে ব্যাপকভাবে মাজরা পোকা আক্রমণ করেছে। পোকা দমনের জন্য প্রায় সব কৃষক দানাদার ও তরলজাতীয় কীটনাশক ব্যবহার করছেন, কিন্তু কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না মাজরার আক্রমণ।

একই গ্রামের কৃষক বল্টু সিকদার অভিযোগ করেন, তারা ধান নিয়ে চরম বিপদে থাকলেও উপজেলা কৃষি অফিস থেকে কেউ ধানের খোঁজখবর নেননি। একই অভিযোগ করে কৃষক রুবেল বলেন, তাদের গ্রামে ফসলের দেখভালের জন্য যাকে দায়িত্ব দেওয়া আছে, বেশিরভাগ কৃষক তাকে চেনেন না। এ কারণে পোকা দমনে তারা কোনো সাহায্য পাচ্ছেন না।

নবগ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর আলম জানান, তাদের গ্রামের মাঠে আমন ধানের গাছে কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মাজরা পোকার আক্রমণ হয়েছে। ওষুধ বিক্রেতাদের পরামর্শে ফুরাডান, ভিরতাগো কিংবা আলটিমা প্লাস দিয়েও কোনো উপকার পাচ্ছি না। পোকা দমন করা না গেলে ধানের ফলনে বড় ধরনের প্রভাব পড়বে।

কৃষি কর্মকর্তা প্রদ্যুৎ কুমার গুহ জানান, যেসব এলাকায় ধানখেতে মাজরা পোকার আক্রমণের কথা বলা হচ্ছে, সেই এলাকার কিছু কৃষক বিষয়টি আমাদের জানিয়েছেন। ওই এলাকায় কৃষি অফিস থেকে দ্রুত অফিসার পাঠিয়ে মাজরা দমনে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। শৈলকুপা উপজেলায় মোট কৃষি ব্লক আছে ৪৩টি কিন্তু আমাদের অফিসার আছে মাত্র ২২ জন। অফিসার স্বল্পতার কারণে আমরা কাঙ্খিত সেবা দিতে পারছি না। আশা করছি ছানটাপ, ব্রাভো, রাইডার প্লাসের মতো ওষুধ প্রয়োগ করলে মাজরা দমন করা সম্ভব হবে এবং কৃষক উপকৃত হবে।

আরও পড়ুন : সোনারগাঁয়ে রেলওয়ের প্রায় ২শ কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, এ মৌসুমে উপজেলার প্রায় ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে আমন চাষ হবে।

ওডি/এএম

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড