• বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

স্বেচ্ছাসেবককে মারধর, পুলিশ সদস্য ক্লোজড

  কাজী শাহরিয়ার রুবেল, বরগুনা

১৯ জুলাই ২০২১, ১৭:০৫
বরিশাল
স্বেচ্ছাসেবক ইমরানুল হক তুহিন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

বরগুনার তালতলীতে ইমরানুল হক তুহিন নামে রেডক্রিসেন্টের এক স্বেচ্ছাসেবকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে।

রবিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে তালতলী হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বরগুনা যুব রেডক্রিসেন্টের দলনায়ক মেহেদী হাসান মুসা জানান, বরগুনায় হাসপাতালে লোকবল সংকটের কারনে চিকিৎস্যকদের টিকা দেয়ার কার্যক্রম প্রথম থেকেই স্বেচ্ছায় কাজ শুরু করে আসছে রেডক্রিসেন্ট সদস্যরা। এরই ধারাবাহিকতায় তালতলী ২০ শয্যা হাসপাতালে করোনার টিকা নিতে আসা সেবা প্রত্যাশীদের সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিরিয়াল ঠিক রাখায় কাজ করছিল যুব রেডক্রিসেন্টের সদস্যরা।

পুলিশ সদস্যরা ও রেডক্রিসেন্টের সদস্যরা যৌথভাবে দায়িত্ব পালনের এক পর্যায় টিকা নিতে আসা এক নারী সিরিয়াল ঠিক রেখে টিকা রেজিস্ট্রেশন ও এনআইডি কার্ডের ফটোকপি করতে দোকানে যায়। দোকান থেকে সেই নারী ফটোকপি নিয়ে ফের হাসপাতালে প্রবেশ করেন। এতে বাধা দেন পুলিশ সদস্য আবু সাইদ।

এ সময় যুব রেডক্রিসেন্টের সদস্য ইমরানুল হক তুহিন ওই পুলিশ সদস্যকে বলেন, ওই নারী সিরিয়াল ঠিক রেখে বাহিরে গিয়েছিল ফটোকপি করতে। তাকে ভিতরে প্রবেশ করতে দেন। সাথে সাথে পুলিশ সদস্য আবু সাইদ চড়াও হয়ে তুহিনকে মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে তুহিনের হাতের একটি আঙ্গুল ভেঙ্গে যায়। মুহূর্তে খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যায় বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে তুহিনকে উদ্ধার করে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

আহত তুহিন জানান, করোনা টিকা কার্যক্রমের শুরু থেকেই আমি রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে টিকা নিতে আসা মানুষদের সিরিয়াল ঠিক করে সামাজিক দূরত্ব মানাতে কাজ করি। এতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উপকৃত হয়। কারন হাসপাতালে লোকবল সংকট। আজ আমি স্বেচ্ছায় সেবা করতে এসে মারধরের শিকার হলাম। আমি লজ্জায় মুখ দেখাতে পারছি না। আমি বিচার চাই।

বরগুনা রেডক্রিসেন্টের পরিচালনা কমিটির সদস্য গোলাম কিবরিয়া পিন্টু বলেন, তুহিনকে মারধরের ঘটনায় আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। তুহিনের মতো যুবকরা প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় বিনা পারিশ্রমিকে কাজ করে যাচ্ছেন। সেখানে তাকে মেরে আঙুল ভেঙে দিলো পুলিশ সদস্য। এ ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সব স্বেচ্ছাসেবকরা স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রম বন্ধ রাখবে।

বরগুনার পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়ে পুলিশ সদস্য আবু সাঈদকে তালতলী থানা থেকে অপসারন করে পুলিশ লাইন্সে আনা হয়েছে।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহাররম আলীকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন তারা। তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

ওডি/এফই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড