• বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাঙামাটিতে আমের বাম্পার ফলন

  এম. কামাল উদ্দিন, রাঙামাটি

১৭ জুন ২০২১, ১০:১০
ছবি : দৈনিক অধিকার

রাঙামাটির আম যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। এবার রাঙামাটির পাহাড়ে আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। জেলার প্রত্যন্ত দুর্গম উপজেলা হতে আম চাষিরা প্রাইকারি ও খুচরা আম বিক্রির উদ্দেশ্যে রাঙামাটি শহরে আসেন। পাহাড়ের ঢালু জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির আম চাষ করা হয়েছে। তবে বাণিজ্যিক ভাবে পাহাড়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছে আম্প্রপালি ও রাঙ্গুই আম।

সদর উপজেলার বন্দুক ভাঙ্গা ইউনিয়নের রমেশ চাকমা ও প্রত্যন্ত দুর্গম বরকল উপজেলার সুবলং হাজাছড়ার আম চাষি রিপন চাকমা জানান, আম্প্রপালি ও রাঙ্গুই আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। তারা ইঞ্জিন বোট যোগে দুর্গম এলাকা থেকে শহরের সমতাঘাটে আম বিক্রি করতে এসেছেন। দুজনে প্রায় ২শ মনের বেশী আম বিক্রি করতে এনেছেন। ভাল দাম পেয়েছেন। প্রতি কেজি আম প্রাইকারি ৩৫-৪০ টাকা দরে বিক্রি করেছেন। খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৫০-৬০ টাকা।

বনরুপা চৌমুহনী কাচা বাজার মূখে খুচরা আম বিক্রেতা সৈয়দ আলী জানান, বাজারে প্রচুর আম এসেছে। তবে এবারের আমে কোন প্রকার ফরমালিন মিশানো হয়নি। বাজারে আম্প্রপালি ও রাঙ্গুই আম পাওয়া যাচ্ছে, দামও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে। আম্প্রপালি ও রাঙ্গুই আম প্রতি কেজি ৪০-৫০ টাকা খুচরা বিক্রি করা হচ্ছে। অন্যান্য স্থানীয় আম ২০-২৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। অপর দিকে রাঙামাটির আম প্রতিদিনই ট্রাকে ট্রাকে করে দেশের বিভিন্ন স্থানে চলে যাচ্ছে। গত বছরের চেয়ে এবার আমের ফলন ভাল হয়েছে।

ঢাকা ও চট্টগ্রামের প্রাইকারি আম ব্যবসায়িরা বলেন,অন্যান্য বছর আমরা বাগানে গিয়ে আম কিনে আনতাম এবার করোনার জন্য তা হলো না। আম্প্রপালি ও রাঙ্গুই আম বাগান কিনলে আরও কম দামে আম পাওয়া যেত। তার পরও ফরমালিন মুক্ত বিধায় রাঙামাটির আমের চাহিদা অপরিসীম।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষ্ণ প্রসাদ মল্লিক জানান, এ বছর রাঙামাটি জেলায় মোট-৩৩৮২ হেক্টর জমিতে আম চাষ করা হয়েছে। এবার প্রতি হেক্টর জমিতে ১১ মেট্রিক টন আম উৎপাদন করা হয়েছে। গত বছরের চেয়ে এ বছর আমের ফলন বেশ ভাল হয়েছে। আর আমে এ বছর পোকাও কম এবং ভাল দাম পেয়েছে চাষীরা। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ মাঠ পর্যায়ে সকল ধরনের লজিষ্টিক সাপোর্ট দিয়ে আসছে।

তিনি আরও বলেন, অপর দিকে রাঙামাটি জেলায় এ বছর কাঁঠাল ৩৩৮৫ হেক্টর জমিতে আবাদ করা হয়েছে। প্রতি হেক্টরে ২৬ মেট্রিক টন করে কাঁঠালের ফলন পাওয়া গেছে। কাঁঠাল ও গত বছরের চেয়ে এ বছর অনেকটা ভাল ফলন হয়েছে। আম ও কাঁঠাল জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে বেশীর ভাগ আবাদ হয়ে থাকে। রাঙামাটির আম, কাঁঠাল, আনারস ও কলা দেশের বিভিন্ন অ লে গিয়ে পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে। সরকার কৃষির উপর অনেক গুরুত্ব দিয়েছেন। সে সাথে আমরাও মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি।

ওডি/এমএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড