• সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফেনীতে শ্বাসকষ্ট রোগীদের জন্য অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপন

  এস.এম ইউসুফ আলী, ব্যুরো প্রধান (ফেনী)

০৯ জুন ২০২১, ১৪:২৫
ফেনীতে শ্বাসকষ্ট রোগীদের জন্য অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপন
ফেনীতে শ্বাসকষ্ট রোগীদের জন্য অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ফেনীতে ১২ হাজার লিটারের লিকুইড অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপন করা হচ্ছে। এখন থেকে অক্সিজেনের জন্য এখানকার মানুষকে আর ঢাকা কিংবা চট্টগ্রাম ছুটতে হবে না। এর ফলে শ্বাসকষ্ট জনিত রোগীদের দুর্ভোগ যেমন লাঘব হবে, তেমনি করোনা আক্রান্তদের মৃত্যু ঝুঁকিও কমবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মঙ্গলবার (৮ জুন) ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ফেনী জেনারেল হাসপাতালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, হাসপাতালটিতে নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডেই কপার পাইপ, ভ্যাপারাইজারসহ প্রয়োজনীয় স্থাপনের কাজ চলছে। প্রায় সবকটি শয্যার পাশে বসেছে অক্সিজেন পোর্টও।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, করোনার প্রথমদিকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ছিল না আইসিইউ সুবিধাসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রী। পরবর্তীতে ফেনী ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমের ব্যক্তিগত উদ্যোগে সালেহউদ্দিন এবং হোসনে আরা চৌধুরী ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় হাসপাতালটিতে হাই ফ্লো অক্সিজেন সেবা নিশ্চিত করতে ১০টি বড় আকারের ম্যানিফোল্ড অক্সিজেন সিলিন্ডার, ৪৫টি অক্সিমিটার প্রদান করেন। এরপর যুক্ত হয় দুই শয্যার আইসিইউ সুবিধা।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, এ লিকুইড অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপনের ফলে হাসপাতালের রোগীদের অক্সিজেন সংকট দূর হবে। গত সোমবার (৭ জুন) সন্ধ্যা পর্যন্ত ১২ হাজার লিটারের এই ট্যাংকটি স্থাপনের কাজ প্রায় ৭০ থেকে ৮০শতাংশ শেষ হয়েছে।

সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকলে সিলিন্ডারের অক্সিজেনের মাধ্যমে পরিস্থিতি সামাল দেয়া কষ্টকর হয়ে পড়ে। এই অবস্থায় গত এপ্রিল মাস থেকে ইউনিসেফ এর অর্থায়নে লিকুইড অক্সিজেনের এ ট্যাংকটির স্থাপন কাজ শুরু হয়।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ইকবাল হোসেন ভূঞা জানান, করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য ৪০-৬০ লিটার পর্যন্ত অক্সিজেন লাগে। সঠিক সময়ে এ অক্সিজেন দেওয়া হলে অনেক রোগীর জীবন রক্ষা পাবে। এ ট্যাংক স্থাপনের ফলে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দূর হবে। পর্যায়ক্রমে ১০শয্যার আইসিইউও চালু করা যাবে।

আরও পড়ুন : সেই চামেলীর বেতন-ভাতা বন্ধ হল

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল খায়ের মিয়াজী জানান, চলতি মাসের মধ্যেই এ অক্সিজেন ট্যাংকের কাজ শেষ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। এরপরই অক্সিজেন সরবরাহ শুরু হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে শুরুর ৬ মাস পর্যন্ত ইউনিসেফ নিজস্ব লোক দিয়ে কাজ করবে। সেই সময়ে আমরা দক্ষ লোক তৈরি করবো। এ ট্যাংক শিগগিরই শেষ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। লিকুইড ট্যাংক স্থাপন করায় অনেক সহজেই আমরা অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারব।

ওডি/এএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড