• শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সোনারগাঁয়ে সিনহা গার্মেন্টস শ্রমিকদের বিক্ষোভ

  নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ)

০৭ জুন ২০২১, ২১:২৩
ছবি : দৈনিক অধিকার

বকেয়া বেতন ভাতাসহ ৭ দফা দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে গার্মেন্ট শ্রমিকরা।

সোমবার (৭ জুন) নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁয়ে শিল্পনগরী কাঁচপুর এলাকার ওপেক্স ও সিনহা গ্রুপের শ্রমিকরা এ মানববন্ধন করে। সকাল থেকে কাজে যোগ না দিয়ে গার্মেন্টের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন শ্রমিকরা। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা গার্মেন্টের পরিচালককে অবরুদ্ধ করে রাখে। তবে শ্রমিকরা মহাসড়কে অবস্থান নেননি। তারা কোনো ভাংচুরও করেননি।

দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনার খবর শুনে শিল্পাঞ্চল পুলিশ ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা যাতে করে মহাসড়কে অবস্থান করতে না পারে সে জন্য কঠোর নিরাপত্তায় থাকে শিল্পাঞ্চল পুলিশ সদস্যরা। সোমবার সকাল থেকে দিনভর এ বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা। পরে বিকেলে মালিক কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে শ্রমিক তাদের বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রত্যাহার করে।

জানা যায়, উপজেলার শিল্প নগরী কাঁচপুরে অবস্থিত ওপেক্স ও সিনহা গ্রুপের সকল শ্রমিকদের প্রতি মাসের বেতন পরবর্তী মাসের কর্মদিবসের সাতদিনের বেতন ভাতা প্রদান করার কথা থাকলেও গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ ৩০ তারিখেও প্রদান করেনি। এরূপ দু’মাসের বেতন ভাতা বকেয়া রয়ে যায়। এছাড়া শ্রমিকদের সার্ভিসের টাকা ছাড়া জোরপূর্বক পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষর, বেআইনিভাবে লে-অফ দেয়াসহ ৭ দফা ও বিভিন্ন অনিয়ম করে ওপেক্স ও সিনহা গ্রুপ কর্তৃপক্ষ।

শ্রমিকদের ৭ দফা দাবি হলো- লে-অফ মানি না, ১ থেকে ৭ কর্ম দিবসে বেতন দিতে হবে, মাতৃকালীন টাকা ছুটিতে যাওয়ার পূর্বে প্রদান করতে হবে, চাকরি ইস্তফা দেওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে সমস্ত পাওনা বুঝিয়ে দিতে হবে। যা বিগত ৬ বছরেও দেওয়া হয়নি, অকারণে মামলা দেওয়া চলবে না, চাকরির নিশ্চয়তা দিতে হবে ও ফ্যাক্টরি চালাতে না পারলে ৪ মাসের বেতন ছুটির টাকাসহ এবং সার্ভিসের টাকা সম্পূর্ণ দিতে হবে।

এদিকে শ্রমিকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে একপর্যায়ে গার্মেন্টের পরিচালক মোহাম্মদ তারেক রহমান অফিস কক্ষে গিয়ে তাদের দাবি নিয়ে কথা বললে শ্রমিকরা ওই পরিচালককে আটকিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে। তবে গার্মেন্ট শ্রমিকরা গার্মেন্টের পাশে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা সিলেট মহাসড়কে অবস্থান করেনি। তারা কয়েকবার মহাসড়কে অবস্থান নিতে চাইলেও পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। এদিকে গার্মেন্ট শ্রমিকদের উত্তেজনার খবর পেয়ে কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল পুলিশ ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

শ্রমিক আলেয়া আক্তার, কামিনী, আমেনা বেগম, জমির হোসেন, মোতালেবসহ একাধিক শ্রমিকরা জানান, ‘এ বেতন ভাতার সমস্যা গত ৫ বছর যাবত চলছে। তাদের সাথে গেঞ্জাম করে বেতন ভাতা নিতে হয়। আমাদের মাতৃত্বকালীন টাকা পরিশোধ করে না। রিজাইনের টাকা, ছুটির টাকা দেয় না। কিছু বললেই গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ মামলা ভয় দেখিয়ে হয়রানি করে, অনেক শ্রমিককে মামলাও দেয়।’

গার্মেন্টের পরিচালক মোহাম্মদ তারেক রহমান জানান, শ্রমিকদের যৌক্তিক দাবি মেনে নেওয়া হবে। তবে কোনো অযৌক্তিক দাবি মেনে নেওয়া হবে না।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড