• রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সেই চামেলীর বেতন-ভাতা বন্ধ হল

  ফরিদপুর প্রতিনিধি

০৭ জুন ২০২১, ২১:২৭
ভাঙ্গা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের
ভাঙ্গা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের পরিবার কল্যাণ সহকারী চামেলি শিকদারের বেতন-ভাতা বন্ধ করা হয়েছে। কর্মস্থলে ছুটি না নিয়ে দিনের পর দিন অনুপস্থিত থাকার অভিযোগের পর তার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হলো। এ ব্যাপারে গত ২ জুন দৈনিক অধিকারের অনলাইন ভার্সনে এবং ৩ জুন প্রিন্ট ভার্সনে 'থাকছেন ভারতে, বেতন তুলছেন দেশে' শিরোনামে এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশিত হয়।

খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা রবিন বিশ্বাস জানান, পরিবার কল্যাণ সহকারী চামেলি শিকদারের বিরুদ্ধে দিনের পর দিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ পেয়ে তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়। কিন্তু নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও তিনি নোটিশের জবাব দেননি। এ প্রেক্ষিতে চলতি সপ্তাহ হতে তার বেতন-ভাতা প্রদান স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। পরিবার কল্যাণ সহকারী চামেলি শিকদারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চলছে।

চামেলি শিকদারের বাড়ি ভাঙ্গা উপজেলার কাউলিবেড়া ইউনিয়নের পল্লিবেড়া গ্রামে। তিনি ওই এলাকায় পরিবার কল্যাণ সহকারী হিসেবে নিযুক্ত আছেন।

সম্প্রতি অভিযোগ ওঠে, গত প্রায় দশ বছরেরও বেশি সময় যাবত চামেলী শিকদার কর্মস্থলে নিয়ম অনুযায়ী উপস্থিত থাকেন না। বছরের বেশিরভাগ সময় তিনি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়ায় অবস্থান করেন। সেখানে যে তার বাড়ি রয়েছে এবং তাঁর সন্তানেরাও সেখান থেকে পড়াশোনা করছেন। পরিবারের সদস্যদের সাথে সেখানে থাকতে তিনি বছরের বেশিরভাগ সময়ই দেশের কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন। আর এই পুরো সময়টাই তিনি কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে কিংবা ছুটি না নিয়েই সেখানে অবস্থান করেন।

বিষয়টি জানতে পেরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তরফ হতে অভিযোগের তদন্তের ব্যবস্থা নেয়া হয় এবং চামিলি শিকদারকে কৈফিয়ত তলব করা হয়।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিমউদ্দিন বলেন, চামেলী শিকদারের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর তাঁর বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে, চাকরীস্থল হতে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার খবরের পর চামেলি শিকদার ভারত থেকে গত সপ্তাহে দেশে ফিরেন বলে জানা গেছে। এরপর তাঁর সাথে যোগাযোগের জন্য তার মোবাইল নম্বরে একাধিকবার ফোন করা হয়। ফোনটা বেজে উঠলেও তিনি একবারও রিসিভ করেননি।

এলাকাবাসী জানান, চামেলী শিকদারের স্বামী সুশান্ত শিকদার কাউলীবেড়া কাজী ওয়ালীউল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক। সুশান্ত শিকদার‌ও কর্মস্থলে ছুটি না নিয়েই দীর্ঘদিন যাবত অনুপস্থিত রয়েছেন বলে জানান ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মেজবাহউদ্দিন। যদিও করোনাকালীন সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

আরও পড়ুন : অস্তিত্ব সংকটে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো

জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মাহবুব হোসেন বলেন, চামেলী শিকদারের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শেষে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওডি/হাসান

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড