• রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঝুঁকিপূর্ণ বেইলি সেতু সংস্কার করালেন ওসি

  আতিকুর রহমান, ঝালকাঠি

০৪ মে ২০২১, ১০:৫০
ছবি : দৈনিক অধিকার

ঝালকাঠির রাজাপুরে বাগড়ি থেকে থানায় অথবা উপজেলায় যেতে বধ্যভূমি সংলগ্ন সংযোগকারী একমাত্র বেইলি সেতুর উত্তর প্রান্তের একটি পাত ভেঙ্গে গর্ত হয়ে মরণ ফাঁদের সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এমন পরিস্থিতিতে প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা। এদিকে সড়ক ও জনপদ বলছে সেতুটি তাদের আওতায় না। একইভাবে এলজিইডিও বলছে সেতুটি তাদের আওতায় না। দুবিভাগের এমন ঠেলাঠেলিতে সংস্কার হচ্ছে না সেতুটি।

এ নিয়ে এলাকাবাসীর প্রশ্ন, তাহলে আসলে ব্রিজটি কার? এর অভিভাবক কে? সংস্কার করার দায়িত্ব কোন দপ্তরের? বড় কোনো দুর্ঘটনা দেখার অপেক্ষায় আছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ? তাদের কি রক্ত অথবা মৃতদেহ প্রয়োজন? লাশ না হলে কি ব্রিজটি সংস্কার করা হবে না? সকল প্রশ্নের সমাধান করে দিলেন রাজাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম। তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে সোমবার রাতে ব্রিজটি সংস্কার করে উপজেলাব্যাপী প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

সোমবার দুপুর থেকে ব্রিজের দুর্ভোগের ছবি সচেতন মহল ফেসবুকে পোস্ট করেন। বিকালের মধ্যেই তা ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। বিষয়টি নজরে আসে রাজাপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. শহিদুল ইসলামের। এরপর তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে স্থানীয় ওয়ার্কশপের সাথে কথা বলে ব্রিজটি সংস্কার করে জনসাধারণের নির্বিঘ্নে চলাচলের ব্যবস্থা করে দেন।

ওসি মো. শহিদুল ইসলাম জানান, জনসাধারণের চলাচলের সুবিধার্থে এবং দুর্ঘটনামুক্ত রাখতে মানবিক দিক থেকে সামান্য প্রচেষ্টা করেছি। যেহেতু ব্রিজটি থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার লোকজন যাতায়াত করে তাই বিপদ মুক্ত থাকতে ব্যক্তিগত উদ্যোগে মেরামত করেছি। এটা বড় কিছু করতে পারি নাই।

সোমবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, ব্রিজটির সকল পাত ভালো থাকলেও উত্তর প্রান্তের দুটি পাত বিভিন্ন স্থান থেকে অগণিত ছিদ্র হয়ে নষ্ট হয়ে গেছে। কিছুদিন আগে ওই স্থানের মাঝের পাতটি ভেঙ্গে গর্ত হলে কয়েক দিন ভোগান্তির পরে স্থানীয় এক ইউপি সদস্য তারিকুল ইসলাম তারেক ব্যক্তি উদ্যোগ ও খরচে মেরামত করেছিলেন। বর্তমানে আগের মেরামত করা স্থানটির পাশ থেকেই আগের মতোই একটি বড় গর্ত হয়েছে। এতে প্রায়ই রিক্সা, অটো ও মোটর সাইলের চাকা আটকে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা।

এ বিষয়ে রাজাপুর এলজিইডি প্রকৌশলী মো. গোলাম মস্তফা জানান, সড়ক এলজিইডির হলেও স্টিল ব্রিজের দায় দায়িত্ব এলজিইডির নয়।

এ বিষয়ে ঝালকাঠি সড়ক ও জনপদের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. হুমায়উন কবির বলেন, সড়ক আমাদের নয়, তাই স্টিল ব্রিজের দায়দায়িত্বও আমাদের নয়।

ওডি/এমএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড