• মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ফরিদপুরে রিমান্ডে থাকা এক আসামির মৃত্যু

  ফরিদপুর প্রতিনিধি

০১ মে ২০২১, ১৯:২৩
আহাজারি
আবুল হোসেনের মৃত্যুতে মেয়ে তানিয়া আক্তারের আহাজারি (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ফরিদপুরের সালথায় পুলিশের সাথে উত্তেজিত গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনায় ফরিদপুর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে থাকা রিমান্ডের এক আসামির মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার (১মে) সকাল ৬টায় ডিবি পুলিশের একটি দল ওই আসামিকে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

মৃত ওই ব্যক্তির নাম আবুল হোসেন মোল্যা (৪৮)। তিনি সালথা উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের গোপালীয়া গ্রামের মৃত ইমানউদ্দিন মোল্যার ছেলে। আবুল হোসেন বিবাহিত এবং দুই ছেলে ও এক মেয়ের বাবা।

গত ৫ এপ্রিল রাতে সালথায় সংঘটিত সহিংস ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামী হিসেবে গত ১৬ এপ্রিল আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর গত ২৮ এপ্রিল পাঁচ দিনের রিমান্ডে তাকে পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়। ডিবি কার্যালয়ে এ রিমান্ড চলছিল।

গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুনীল কুমার কর্মকার বলেন, আবুল হোসেনের রিমান্ড চলছিল। সকালে তিনি সেহরি খেয়েছেন। এরপর শনিবার ভোর সোয়া পাঁচটর দিকে তিনি বাথরুমে যান। পরে নিরাপত্তারক্ষী দেখেন বমি করে মেঝেতে লুটিয়ে আছেন আবুল হোসেন। পরে তাকে দ্রুত ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই সময় জেনারেল হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ছিলেন মো. তোফাজ্জেল হোসেন। তোফাজ্জেল হোসেন জানান, পুলিশ আবুল হোসেনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসে।

আবুল হোসেনের মেয়ে তানিয়া আক্তার বলেন, আমার বাবা কোন অপরাধ করেনি। আমার বাবাকে রিমান্ডে নিয়া মাইরা ফেলানো হইছে। আমার বাবা নিরিহ প্রকৃতির মানুষ ছিলেন। তিনি কোন দলপক্ষে থাকেন না। তিনি গরুর খামার নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন।

সোনাপুর ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান মো. খায়রুজ্জামান বলেন, মৃত আবুল হোসেন একজন নিরীহ ও সৌখিন ধরনের মানুষ ছিলেন। তিনি একটি গরুর খামার করেছেন ওই খামার নিয়েই থাকেন। তিনি রাজনৈতিকভাবে আওয়ামী লীগের সমর্থক ছিলেন।

ফরিদপুর পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, এ বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও অপারেশন) জামাল পাশাকে আহ্বায়ক করে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে বিস্তারিত জানা যাবে বলেও তিনি জানান।

বিএনপি নেত্রী শামা ওবায়েদের প্রতিবাদ:

এদিকে, রিমান্ডে আবুল হোসেনের মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ইসলাম রিংকু।

আরও পড়ুন : ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটে ভোক্তারা জিম্মি

তিনি বলেন, আবুল হোসেন একজন সাধারণ কর্মী ছিলেন। তিনি কোন পদেও ছিলেন না। মিথ্যা মামলায় আটকের পর কিভাবে রিমান্ডে তার মৃত্যু হলো এব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জবাব দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, লকডাউনকে কেন্দ্র করে গত ৫এপ্রিল সালথা উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন সরকারি অফিসে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় দুই যুবক নিহত হন।

ওডি/এএইচ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড