• রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইদকে সামনে রেখে রূপগঞ্জে সেমাই তৈরির ধুম

  সাইদুর রহমান, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)

২৯ এপ্রিল ২০২১, ১২:০৪
ইদকে সামনে রেখে রূপগঞ্জে সেমাই তৈরির ধুম
ইদকে সামনে রেখে রূপগঞ্জে সেমাই তৈরির ধুম (ছবি : দৈনিক অধিকার)

হাতে তৈরি চাক সেমাই দেশজোড়া খ্যাতি লাভ করেছে। ইদকে সামনে রেখে রূপগঞ্জের সেমাই পল্লীতে চলছে কর্মমূখর ব্যস্ততা। ভোলাবো ইউনিয়নের চারিতালুক গ্রামের ঘরে ঘরে চলছে সেমাই তৈরির কাজ। নারী-পুরুষ, আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা সবাই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সেমাই তৈরির কাজে ব্যস্ত। প্রতিদিন ৭০টি পরিবার দেড়’শ মণ সেমাই তৈরি করে।

এসব সেমাই প্যাকেটজাত করে চকবাজারে বিক্রি করা হয়। সেখান থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি হয় হাতে তৈরি সেমাই। সেমাই বিক্রি করেই ৭০ পরিবারের ভাগ্য বদল হয়েছে। বছরের দু’টি ঈদেই তৈরি হয় সেমাই। এবার লকডাউনের কবলে পরে প্রেক্ষাপট খানিকটা ভিন্ন। এখনো সেভাবে শুরু হয়নি বেচা/বিক্রি। তাই খানিকটা দুঃচিন্তা কারিগরদের মাঝে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার ভোলাবো ইউনিয়নের চারিতালুক গ্রামের ঘরে ঘরে তৈরি হচ্ছে হাতে তৈরি চাক সেমাই। কাকডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে সেমাই তৈরির ধুম। কেউ সেমাই তৈরির গোলা তৈরি করছে। কেউ রোদে শুকাচ্ছে। আবার কেউবা চুলায় তাপ দিয়ে ভাজছে। কেউ কেউ প্যাকেট করে খাচিতে ভরছে। চারিতালুক গ্রামের হাতে তৈরি সেমাইয়ের খ্যাতি এখন দেশজোড়া। প্রতি কেজি বিক্রি হয় ১৫০ টাকা। প্রতিদিন দেড়’শ মণ সেমাই তৈরি হয় এখানে।

কথা হয় সেমাই তৈরির কারিগর রজ্জব আলীর সঙ্গে। তিনি বলেন, ভাই মেশিনে তৈরি সেমাইতো সবাই খায়। হাতে তৈরি সেমাইয়ের স্বাদই আলাদা। তবে অনেক কষ্ট বানাতে। দুই ঈদ আইলেই ব্যবসা হয়।

নারী কারিগর রেশমা আক্তার বলেন, দিন-রাত খেটে লাভ নাই। তারপরেও বানাই। বিয়ে হওয়ার পর থেকেই দেখে আসছি সেমাই বানায় গ্রামের সবাই।

আরেক কারিগর রমজান শেখ বলেন, ময়দা, চিনির যে দাম, সেমাই বানিয়ে, প্যাকেট করা পর্যন্ত অনেক খরচ হয়ে যায়। বিক্রি করে সে লাভ থাকে না। তারপরেও করি।

পঞ্চাশোর্ধ্ব সুলতান মিয়া বলেন, ভাই সেমাইতো বানিয়েছি,তবে যে ভাবে লকডাউন চলতাছে আল্লাহ জানে বেচাকেনা হবে নাকি। বিক্রি করতে না পারলে বাঁচার অপায় থাকবে না। অনেক টাকা ঋণ করে তবে এবার সেমাই বানিয়েছি। যদি সরকারী সাহায্য পেতাম, তাইলে আমরা গ্রামের পর গ্রাম এ ব্যবসা করতে পারতাম। এলাকার মানুষ ভালা থাকতে পারতো।

ভোলাবো ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন টিটু দৈনিক অধিবকারকে বলেন, এটা একটা ভালো উদ্যোগ। এতে গ্রামের মানুষ সাবলম্বী হচ্ছে। পাশাপাশি রূপগঞ্জের তৈরি সেমাইয়ের কদর বাড়ছে। তবে সবার উচিৎ তাদের সহযোগীতার হাত বাড়ানো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ নুসরাত জাহান দৈকিক অধিকারকে বলেন, আমার জানা ছিলোনা। আজ প্রথম শুনলাম রূপগঞ্জের প্রত্যন্ত এলাকায় হাতে তৈরি সেমাইয়ের কদর রয়েছে সারাদেশে। সরকারীভাবে তাদের ঋণ দিয়ে সহযোগীতার চেষ্টা করবো।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড