• শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সরকারি রাস্তা কেটে ফিশারি নির্মাণের অভিযোগ

  আশরাফুল ইসলাম, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ)

১২ এপ্রিল ২০২১, ১৫:৩২
চলাচলের রাস্তা কেটে ফিশারি নির্মাণ
চলাচলের রাস্তা কেটে ফিশারি নির্মাণ। (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দকৃত জন চলাচলের রাস্তা কেটে ফিশারি নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাইথল ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ফুলগাছিয়া পূর্ব পাড়া এলাকার মৃত অহেদ আলী ঢালীর ছেলে হাবিবুল্লাহ ঢালী, আসাদুল্লাহ ঢালী ও একই এলাকার হেলাল উদ্দিন ঢালীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসী এই অভিযোগ আনেন।

জানা যায়, উপজেলার পাইথল ইউনিয়নে ফুলগাছিয়া গ্রামে মান্নান মাস্টারের বাড়ি থেকে পূর্বপাড়া বাতেন ঢালীর বাড়ি পর্যন্ত ৮০০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১০ ফুট প্রশস্ত রাস্তাটি প্রায় ৬০০ মিটার এর মতো অংশীদারিত্ব প্রকল্প ও এল জি এস পি ৩ এর ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে রাস্তাটি পাকা করা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, পাকা রাস্তার মাথায় দুই পাশে ফিশারি থাকার কারণে রাস্তাটি ভেঙে সরু হয়ে যায়। এতে প্রায় ৪০টি পরিবার চলাচলে দুর্ভোগে পড়েছেন।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আব্দুল বাতেন ঢালী জানান, ব্যক্তিগত প্রতিহিংসার কারণে কেউ রাস্তা কেটে ফেলতে পারেনা। রাস্তা কেটে ফেলার কারণে রাস্তাটা সরু হয়ে গেছে এতে জন চলাচলে দুর্ভোগ বেড়ে গেছে। এই বিষয় নিয়ে আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলেছি। রাস্তাটি ভরাট করে দেওয়ার জন্য প্রয়োজনে আমরা ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ করব।

পাইথন ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ড সদস্য মো. সাহিদ মিয়া জানান, এই রাস্তাটি দিয়ে প্রায় ২৫ বছর যাবত মানুষ চলাফেরা করে। আমি ইউনিয়ন পরিষদ ও এল জি এস পি বরাদ্দ থেকে ৬শ’ ফিট এর মত রাস্তা ইটের সোলিং ও কার্পেটিং করে দিয়েছি। রাস্তার দুই পাশে ফিশারি থাকার কারণে রাস্তা বারবার ভেঙে যায়।

অভিযুক্তদের পক্ষে রফিক ঢালীর বলেন, আমাদের নিজস্ব সম্পত্তির উপর দিয়ে এই রাস্তা দিয়েছি। কিন্তু দুই পাশে ফিশারি থাকার কারণে প্রতিবছর রাস্তা ভেঙ্গে যায়। রাস্তা যতটুকু ভেঙেছে জনস্বার্থে ততটুকু রাস্তা ভরাট করে দেবো।

এ বিষয়ে হেলাল উদ্দিন ঢালীর সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। এছাড়া তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে কাউকে পাওয়া যায়নি।

পাইথল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান ঢালী জানান, এই রাস্তাটি দিয়ে প্রায় ২৫ বছর যাবত মানুষ চলাফেরা করে। এটি সরকারি রাস্তা। রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া বা কেটে ফেলার অধিকার কারো নেই। আমি ইউএনওর সাথে কথা বলেছি দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গফরগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও তাজুল ইসলাম জানান, এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং মেম্বারের সাথে কথা বলে তদন্তের মাধ্যমে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

ওডি/জেআই

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড