• বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মামুনুলের দ্বিতীয় শ্বশুর ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি

  সারাদেশ ডেস্ক

০৪ এপ্রিল ২০২১, ২২:১৭
হেফাজতে ইসলাম
দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে মাওলানা মামুনুল হক (ছবি : সংগৃহীত)

নারায়ণগঞ্জের একটি রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের সঙ্গে থাকা নারীর পরিচয় পাওয়া গেছে। ওই নারীর নাম জান্নাত আরা ঝর্ণা (২৭)। জান্নাত আরা ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের কামারগ্রামের পাশের কুলধর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. অলিয়ার রহমান ওরফে পাগলা অলি মিয়ার মেয়ে। তারা আট ভাই-বোন। বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়।

অলিয়ার রহমান গোপালপুর ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সেনা সদস্য। মামুনুল হক ওই সময় নারীর নাম আমেনা তৈয়াবা বললেও তার নাম জান্নাত আরা ঝর্ণা। তবে জান্নাত আরা ঝর্ণার আগে বিয়ে হয়েছে, সেই ঘরে দুটি সন্তান রয়েছে, এ কথা সকলে জানলেও দ্বিতীয় বিয়ের কোনো খবরই জানেন না উপজেলাসহ গ্রামবাসী।

ঝর্ণার বাবা-মা জানান, মেয়ে জান্নাত আরা ঝর্ণার ১১ বছর বয়সে খুলনা জেলার সোনাডাঙ্গা এলাকার হাফেজ শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদুল্লাহ নামে এক ব্যক্তির সাথে বিয়ে হয়। এ দম্পত্তির ঘরে আব্দুর রহমান ও তামীম নামে দুজন পুত্র সন্তান আছে। সন্তান দুটি তার বাবার বাড়ি খুলনায় থাকেন।

জান্নাত আরা ঝর্ণার বাবা অলিয়ার রহমান বলেন, ‘আমার মেয়ের সাথে জামাতা শহিদুল ইসলামের পারিবারিক কলহের কারণে প্রায় তিন বছর আগে তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়। তারপর থেকে দুই বছর আগে আমরা পাত্র দেখে মেয়েকে বিবাহ করার কথা বললে, মেয়ে বলতো আমার বিয়ে হয়েছে। এ জন্য আমরা আর কোনো পাত্র দেখিনি।’ তবে কার সঙ্গে মেয়ে ঝর্ণার দ্বিতীয় বিয়ে হয়েছে সে ব্যাপারে পরিবার জানে না।

ঝর্ণার মা শিরীনা বেগম বলেন, শুধু একবার ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে স্বামী মামুনুল হককে দেখিয়েছিল। কিন্তু আমরা বুঝতে পারিনি তিনি মাওলানা মামুনুল হক ছিলেন।

গোপালপুর ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য, ৪নম্বর ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকা বিল্লাল মোল্যা জানান, অলিয়ার রহমান একজন সাবেক সেনা সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা। সে একজন ভদ্র মানুষ। বাজারে আসার সুবাদে অনেক কথা হয়। কিন্ত ছেলে-মেয়ের ব্যাপারে বেশি কিছু জানি না।

আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মোনায়েম খান ও ৪নম্বর ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ আব্দুল মজিদ জানান, জান্নাত আরার বাবা অলিয়ার রহমান একজন সহজ সরল মানুষ। তিনি ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক সেনা সদস্য ও একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। মেয়েটির আগে বিয়ে হয়েছিল। সে ঘরে দুটি ছেলে সন্তান আছে। পরের বিয়ের বিষয়টি আমরা জানি না।

রবিবার সকালে জান্নাত আরা ঝর্ণার বাবার বাড়ি গোপালপুর ইউনিয়নের কুলধর গ্রাম পরিদর্শনকারী আলফাডাঙ্গা থানার ওসি মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, আমি সকালে ওই গ্রামে পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। জান্নাত আরার আগের বিয়ের বিষয়টি ও এ উপজেলার বাসিন্দা সেটা নিশ্চিত হওয়া গেছে। সেই ঘরে দুটি সন্তান আছে। তারা বাবার কাছে খুলনায় থাকে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড