• শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খুলনার অধিকাংশ লোকই মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

  এম, ডি অসীম, বিভাগীয় প্রধান, খুলনা

০৪ এপ্রিল ২০২১, ১৬:২৪
খুলনার অধিকাংশ লোকই মানছে না স্বাস্থ্যবিধি
সড়কে অবাধে চলাফেরা করছে লোকজন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পাওয়ায় খুলনায় সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সন্ধ্যা সাতটার পর দোকানপাট বন্ধ রাখার ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে পর্যটন কেন্দ্র, পার্ক, বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ রাখাসহ ৫ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তবে ক্লিনিক, হাসপাতাল ও ওষুধের দোকান সার্বক্ষণিক খোলা থাকবে। খুলনা জেলার করোনা ভাইরাস সংক্রমণ, প্রতিরোধসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় সিদ্ধান্তটি নেওয়া হয়েছে।

যদিও রবিবার (০৪ এপ্রিল) সকাল থেকে খুলনা মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেছে স্বাস্থ্যবিধির কোন তোয়াক্কা না করেই স্বাভাবিক ভাবেই চলছে সবকিছু। অলি-গলির চায়ের দোকানেও চলছে জমপেশ আড্ডা। মুখে নেই কোনো মাস্ক!

সকাল থেকেই মহানগরীর পিকচার প্যালেস মোড়, ডাক বাংলার মোড়, শান্তিধাম মোড়ে সাধারণ মানুষের ভিড় চোখে পড়ার মতো। আর ঘণ্টার পর ঘণ্টা জ্যাম তো রয়েছে। তবে সকাল থেকে প্রশাসনেরও তেমন নজরদারি নেই। নেই কোন কঠোরতা। রিকশা, ইজিবাইক ও ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রাইভেটকারসহ ছোট ছোট যানবাহনের কারণে শহরের কোথাও কোথাও যানজটের সৃষ্টি হয়।

অনেকে বলছেন, শহরের মানুষ অপ্রয়োজনে অনেকে বের হচ্ছেন। খুলনার বিভিন্ন স্থানে মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। এই জনসমাগমের কারণে করোনা ঝুঁকি আরও বাড়তে পারে।

রবিবার দুপুরে খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার কয়েকটি বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, কারো মধ্যেই সামাজিক দূরত্ব মানার কোনো বালাই নেই! বেশির ভাগ লোক মাস্কও ব্যবহার করছে না। কেউ কেউ মুখে না পরে গলায় ঝুলিয়ে রেখেছে।

জিজ্ঞেস করলে নানা ধরনের অজুহাত দিচ্ছে। মাস্ক ব্যবহার না করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা ও কারাদণ্ড প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রশাসন আইনের যথাযথ প্রয়োগের দিকটি গুরুত্ব না দেওয়ায় করোনার ঝুঁকি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

রূপসা উপজেলার ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান দৈনিক অধিকারকে বলেন, সংসারের প্রয়োজনে হাট-বাজারে যেতে হয়। নিজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে বের হলেও বেশির ভাগ মানুষ মাস্ক ব্যবহার না করায় ঝুঁকি থেকেই যায়।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নেওয়াজ মাহামুদ দৈনিক অধিকারকে বলেন, বিধি নিষেধ যারা মানছেন না তাদের প্রতি প্রশাসনের কঠোর হওয়া প্রয়োজন। খুলনার মানুষ স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে দিন দিন করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এখনো যদি নিয়ম না মানে তাহলে ভয়াবহ অবস্থা তৈরি হবে এটা সবার বোঝা উচিত।

তিনি বলেছেন, আসুন আমরা সবাই নিজে বাঁচি, অন্যকে বাঁচাই, দেশকে বাঁচাই। করোনা মহামারি প্রতিরোধে ঘরে থাকার এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রণীত বিধি মেনে চলার আহ্বান জানান সিভিল সার্জন।

আরও পড়ুন : হারিয়ে যাচ্ছে ‘গাড়িয়াল ভাই’ ও গরু-মহিষের গাড়ি

খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন দৈনিক অধিকারকে বলেন, মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। নিজ দায়িত্বে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তার পরও নিজ থেকে সচেতন না হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমন পরিস্থিতিতে শনিবার (৩ এপ্রিল) জেলা প্রশাসক এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন।

ওডি/কেএইচআর

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড