• মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কালিয়াকৈরে স্কুল ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

  মো. আফসার খাঁন বিপুল, কালিয়াকৈর

০৩ এপ্রিল ২০২১, ১৫:৫২
কালিয়াকৈরে স্কুল ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ
বন্ধ রয়েছে স্কুল ভবনের নির্মাণ কাজ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অনিয়মের অভিযোগে গত দুই মাস ধরে ওই স্কুলের ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। এর আগেও একই অভিযোগে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছিল এলাকাবাসী। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন।

এলাকাবাসী, স্কুল কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার নয়ানগর এলাকার ৫২নম্বর নয়ানগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম ঘটেছে। গত এপ্রিল মাসে প্রায় ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪ তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট ওই স্কুলের নতুন একটি ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) তত্বাবধানে ওই ভবন নির্মাণ কাজ করছে মেসার্স মজিবুর ট্রেডার্স নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু কাজের শুরুর দিকে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ও অনিয়মের অভিযোগে নির্মাণ কাজটি বন্ধ করে দেন এলাকাবাসী।

পরে এলাকাবাসী ও স্কুল কমিটির কাছে সঠিকভাবে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পুনরায় কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু সে কথাও রাখেনি প্রতিষ্ঠানটি। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন উপজেলা ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজসে আবারও অনিয়মের মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছে।

শিডিউল বহির্ভূতভাবে ভবনের ছাদ ছোট, দরজা-জানালার শিটসহ নিম্নমানের কাজসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠে। ব্যাপক অনিয়মের চিত্র জানাজানি হলে পিলারের উপর সিমেন্টের খুঁটি ফেলে ছাদটি বৃদ্ধির চেষ্টা করা হয়। ছাদ বৃদ্ধি করা ওই সিমেন্টের খুঁটি যে কোনও সময় খুলে বা ধসে পড়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

ঘটতে পারে শিশু শিক্ষার্থীসহ তাদের অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের প্রাণহানির মতো বড় ধরণের ঘটনাও। এমন আশঙ্কায় স্কুল কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসী ওই ভবনের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। এরপর থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজনও রয়েছে লাপাত্তা। গত দুই মাস ধরে ওই ভবনের নির্মাণ কাজটি বন্ধ হয়ে পড়ে আছে।

এলাকাবাসী অভিযোগ, ভবন নির্মাণের ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগের বিষয়টি উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) উপ-সহকারী কর্মকর্তা মো. সেলিম হোসেনকে জানানো হলেও অজ্ঞাত কারণে তিনি কোনও ব্যবস্থা নেননি। পরে অনিয়মের অভিযোগে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিলে টনক নড়ছে প্রশাসনের।

তবে অনিয়মের অভিযোগে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়ায় মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত আসবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা এলজিইডি অফিস। এখন অভিযুক্ত মেসার্স মজিবুর ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মো. মজিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি সাইজুদ্দিন, স্থানীয় আলহাজ্ব সমন আলী, জাহাঙ্গীর আলম জানান, শুরু থেকেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নানা অনিয়ম করে আসছে। তাদের অনিয়ম হাতে-নাতে ধরা পড়েছে। কোমলমতী শিক্ষার্থীসহ সবার নিরাপত্তার স্বার্থে ও শিডিউল অনুযায়ী ভবন নির্মাণের দাবীতে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে অনিয়মের বিষয়টি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় তুলে ধরা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহ আলম বলেন, নানা অনিয়মের অভিযোগে গত দুই মাস ধরে স্কুলের ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে। সবচেয়ে বেশি অনিয়ম হচ্ছে ছাদ বানানোর সময় মাপে কম দিয়েছিল। জানাজানি হলে সিমেন্টের খুঁটি দিয়ে ছাদ বাড়ানো হয়েছিল। আবার কবে ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে, তা বলতে পারছি না।

উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও তদারকি কর্মকর্তা মো. সেলিম হোসেন জানান, মিস্ত্রিদের কারণে স্কুলভবন নির্মাণে কিছু ত্রুটি হয়েছে। সেগুলো সংশোধনের চেষ্টা করলে কিছু লোক নানা অজুহাতে ভবনের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। এতে প্রায় দুই মাস ধরে ওই ভবনের নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে।

কালিয়াকৈর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) প্রকৌশলী বিপ্লব পাল জানান, ওই স্কুলের ভবনের বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে তদন্তে আসার কথা রয়েছে।

গাজীপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, ওই বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে শিডিউল অনুযায়ী কাজ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড