• শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৫০ বছরেও উন্নয়ন দেখেনি কালদাইড়বাসি

  আশরাফুল ইসলাম, গফরগাঁও, (ময়মনসিংহ)

০৩ এপ্রিল ২০২১, ১৪:১২
৫০ বছরেও উন্নয়ন দেখেনি কালদাইড়বাসি
খরহতি খালের ওপরে বাঁশের সাঁকো (ছবি : দৈনিক অধিকার)

স্বাধীনতার ৫০ বছর পার হলেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার নিগুয়ারী ইউনিয়নের মাখল কালদাইড় গ্রামে।

সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় অন্য এলাকার চেয়ে অনেক পিছিয়ে রয়েছেন এই জনপদ। গফরগাঁওয়ের নিগুয়ারী ইউনিয়নের মাখল কালদাইড়ের এই জনপদে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি গেলো ৫০ বছরেও।

এই গ্রামের মানুষের যোগাযোগের জন্য নেই সড়ক ব্যবস্থা। বর্ষা মৌসুমে খাল-বিল পারাপারে একমাত্র ভরসা নৌকা। শুকনো মৌসুমে সেই ভোগান্তি বাড়ে বহুগুণে।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, সড়ক ব্যবস্থা উন্নয়নে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই আশার আলো নিয়ে দিন অতিবাহিত হচ্ছে গ্রামবাসীর। গ্রামে নেই কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্রিজ, কালভার্ট। সড়ক ব্যবস্থা ভালো না থাকায় এই গ্রামে সভ্যতার আলো এখনো পৌঁছেনি। তাই নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা নিয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে কয়েক হাজার গ্রামবাসীর।

বিল মাখল কালদাইড় একটি কৃষি প্রধান গ্রাম। এখানে যোগাযোগ ব্যবস্থার আশাতীত উন্নয়ন না হওয়ায় কৃষি নির্ভর পরিবারগুলো কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না। আবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় অকালে ঝড়ে যাচ্ছে অনেকেই।

নদী খাল বিলে ঘেরা এই গ্রামটি দৈর্ঘ্য প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। গ্রামের এক পাশ দিয়ে বয়ে গেছে শিলা নদী। গ্রামে ঢুকতেই পরে খরহতি খাল। কিন্তু এই খালের উপর একটি কালভার্ট নির্মিত হলেও বর্ষাকালে থাকে পানির নিচে তাই বাধ্য হয়ে এ গ্রামের মানুষেরা বর্ষা মৌসুমে ডিঙ্গি নৌকার উপর ভরসা করে চলতে হয়।

মাখল কালদাইড় গ্রামের কৃষক জহুর আলী জানান, আমাদের এলাকার কয়েকহাজার লোকজন কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। কিন্তু সড়কের সংস্কার কাজ না হওয়ায় সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হচ্ছে কৃষকেরা। তারা উৎপাদিত পণ্যর ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না।

ষাটোর্ধ্ব রহিমা খাতুন জানান, আমরা জন্ম থেকেই এমন অবস্থায় আছি। আমাদের অবস্থা এতই শোচনীয় যে অনেকে বিবাহের সম্পর্ক করতে এই এলাকায় আসেনা।

স্কুল শিক্ষক আমির হোসেন জানান, এই এলাকার প্রায় পাঁচ হাজার পরিবারের বসবাস থাকলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বলতে একটি মাত্র প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বাহিরে শিক্ষাগ্রহণকারি শিক্ষার্থীদের প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ যেতে হয় পায়ে হেটে। এতে অনেক ছেলে মেয়ে প্রাথমিক শিক্ষার পরেই ঝড়ে পড়ছে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হামিদ জানান, খরহতি খালের উপর একটি কালভার্ট নির্মাণ হয়েছে। রাস্তা না থাকায় কালভার্টটি একেবারে নিচু হয়েছে। ফলে বর্ষাকালে পানির নিচে থাকে।

নিগুয়ারী ইউনিয়ন ১ নং ওয়ার্ড সদস্য মকবুল হোসেন জানান, এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সাথে কথা হয়েছে। শীঘ্রই এলাকার লোকজনের দূর্ভোগ লাঘবে গয়েশপুর কান্দিপাড়া সড়ক হতে বিল মাখল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তাটি ইটের সলিং করা হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড