• রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দেড় শতাধিক কৃষকের আস্থা তৈয়ব আলী

  শাহাদাৎ হোসেন, তালতলী, বরগুনা

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:৩৪
দেড় শতাধিক কৃষকের আস্থা তৈয়ব আলী
বোরো ধান চাষ করতে ব্যস্ত কৃষকরা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

তিন একর জমিতে গত চার বছর ধরে বোরো ধান চাষ করছেন কৃষক তৈয়ব আলী হাওলাদার। এই ধান চাষ করে ভালোই লাভবান তিনি। এবার তৈয়ব আলীর সাফল্য দেখে এলাকায় প্রায় দেড় শতাধিক কৃষক বোরো ধান চাষ করতে আগ্রহী।

বরগুনা তালতলী উপজেলার কড়ইবাড়িয়া ইউনিয়নের উওর কড়ইবাড়িয়া গ্রামের কৃষক তৈয়ব আলী প্রায় ২০ বছর ধরে কৃষি কাজ করছেন। গত চার বছর ধরে তিনি তিন একর জমিতে বোরো ধান চাষ করছেন।

এই ধান চাষ করতে প্রচুর মিষ্টি পানির প্রয়োজন হয়। যদিও পানি সেচের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় বোরো চাষ করে প্রায় হতাশার মধ্যেই ছিল কৃষক তৈয়ব আলী। উপায় না পেয়ে পুকুরের পানি সেচ দিয়ে বোরো চাষ করতেন তিনি।

তবে গত বছর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে খাল খননের কারণে ভাগ্যের পরিবর্তন হয়ে গেছে এলাকার কৃষকদের। তৈয়ব আলীর পরামর্শে ভালো ফলনের আশায় প্রায় দেড় শতাধিক কৃষক বোরো চাষ করছেন। এসব কৃষকদের অধিকাংশ নিজ উদ্যোগে বোরো ধান চাষ করছেন সরকারিভাবে সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন না বলে অনেকেই অভিযোগ করছেন।

কৃষক তৈয়ব আলী বলেন, চার বছর আগে তিন একর জমিতে বোরো চাষ করতে প্রায় ২৪ হাজার টাকা খরচ হত কিন্তু এখন প্রতি একর জমি চাষ করতে প্রায় ২০ হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। ফলন ভালো হলে প্রতি একরে প্রায় ৫০ হাজার টাকা বিক্রি করা সম্ভব। খাল কাটার পর এখন পানির অভাব নেই ভালো ফলনের আশা করছি।

আরও পড়ুন : সিরাজগঞ্জে হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া বাচ্চা উদ্ধার, চোরচক্র আটক

তিনি আরও বলেন, কৃষি অফিস থেকে কোন ধরনের সুযোগ সুবিধা পাচ্ছি না। যদি কৃষি অফিস আমাদের একটু সুযোগ সুবিধা দেয় তাহলে কৃষকরা লাভবান হবে।

কৃষক ইউসুফ হাওলাদার বলেন, তৈয়ব আলীর পরামর্শে দেড় একর জমিতে বোরো ধান চাষ করছি। বোরো চাষে মিষ্টি পানির অভাবে ছিল কিন্তু এখন পানির অভাব নেই তাই ভাল ফলনের আশা করছি।

এক সময় যারা এ এলাকায় বোরো ধান চাষ করতে আগ্রহী ছিল না এখন তারা তৈয়ব আলীর পরামর্শে শত শত একর জমিতে বোরো ধান চাষ করছেন এসব কৃষকরা ভালো ফলনের আশা করছেন।

তালতলী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, উপজেলার কড়ইবাড়িয়া এলাকায় ৮০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ করা হচ্ছে। ওই এলাকায় পানি সমস্যাটাই প্রধান সমস্যা ছিল, শীতের মৌসুমে জমির লবণাক্ততা বেশি বেড়ে যায়।

আরও পড়ুন : রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে চলছে ভোটগ্রহণ

তার মতে, এ বছর কম বৃষ্টি হওয়ার কারণে অনেক সেচের প্রয়োজন হচ্ছে। আমরা কৃষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের সমস্যাগুলো সমাধানের চেষ্টা করব।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড