• রোববার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বগুড়ায় স্ত্রীর মামলায় পুলিশের এসআই কারাগারে

  আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া প্রতিনিধি

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৫৬
বগুড়ায় স্ত্রীর মামলায় পুলিশের এসআই কারাগারে
পুলিশ কর্মকর্তা ইফতেখায়ের মো. গাউসুল আজম (ছবি : সংগৃহীত)

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় পুলিশের এসআই এখন কারাগারে। ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি, নির্যাতন করে হত্যা চেষ্টা ও গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন স্ত্রী। এই মামলায় পুলিশ কর্মকর্তা এসআই ইফতেখায়ের মো. গাউসুল আজম বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আদালতে জামিন প্রার্থনা করেন। পরে আদালত তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পুলিশ কর্মকর্তা গাউসুল আজম নওগাঁ জেলায় রিজার্ভ অফিসে কর্মরত আছেন। তিনি জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার বাগজানা ইউনিয়নের চেঁচড়া গ্রামের শামছুল হক ও ফিরোজা বেগমের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বগুড়ার শেরপুর পৌর এলাকার টাউন কলোনির বাসিন্দা গৃহবধূ তমানিয়া আফরিন তার স্বামী পুলিশের এসআই ইফতেখায়ের গাউসুল আজমকে আসামি করে বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২ এর আদালতে ২০২০ সালের ২২ সেপ্টেম্বর এই মামলা দায়ের করেন।

মামলায় বাদী অভিযোগে উল্লেখ করেন, তিনি বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজের ইংরেজি মাস্টার্স শ্রেণিতে লেখাপড়া করেন। ফেসবুকে মাধ্যমে তার সাথে আসামির পরিচয় ও বন্ধুত্ব হয় তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে তার রেজিস্ট্রি কাবিননামা মূলে বিয়ে হয়। তারা স্বামী স্ত্রী হিসেবে দাম্পত্য জীবন অতিবাহিত করাকালে বাদী ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে তিনি জানতে পারেন, তার স্বামীর আগের স্ত্রী ও সন্তান আছে এবং আসামি সে বিষয় গোপন করে তাকে বিয়ে করেছে।

আরও পড়ুন : হাসপাতালে প্রিন্স ফিলিপ

এ দিকে আসামি পুলিশের ওই এসআই গাউসুল আজম ঐ বছরের ১৭ আগস্ট দুপুরে বাদিনীর বাবার বাড়ী শেরপুর টাউন কলোনির বাসায় যায় এবং যৌতুক হিসেবে ১০ লাখ টাকা দাবি করে, না পেয়ে তার স্ত্রীকে কিল ঘুষি মারাসহ শ্বাস রোধে হত্যার চেষ্টা করে। এছাড়া তার তলপেটে লাথি মেরে গুরুতর আহত করায় গর্ভপাত হয়।

এ ঘটনায় স্বামী পুলিশের এসআই ইফতেখায়ের গাউসুল আজমকে আসামি করে বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল নং-২ এর আদালতে গত বছরের ২২ সেপ্টেম্বর মামলাটি দায়ের করেন।

আইনজীবী এড. এস এম আবুল কালাম আজাদ জানান, অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা গাউসুল আজম উচ্চ আদালত থেকে ৮ সপ্তাহের জামিন নিয়ে এসেছিলেন। ৮ সপ্তাহ পর তিনি বুধবার দুপুরে আবার নিম্ন আদালতে জামিন আবেদন করলে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক নুর মোহাম্মাদ শাহরিয়ার কবীর তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

আরও পড়ুন : বিশ্বের শীর্ষ ধনীর খেতাব উদ্ধার করলেন জেফ বেজোস

বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২ এর স্পেশাল পিপি এড. আশেকুর রহমান সুজন জানান, স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক পুলিশ কর্মকর্তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড