• বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা অপসারণে বিক্ষোভ

  মিজানুর রহমান মজনু, ভালুকা

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:৪৫
বিক্ষোভ
স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. সোহেলী শারমিনের অপসারণ এবং শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. সোহেলী শারমিনের অপসারণ এবং শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয়রা। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে ও পরে ভালুকা বাসস্ট্যান্ড চত্বরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এক ঘণ্টা অবস্থান করে বিক্ষোভ করেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এতে মহাসড়কের দুই পাশেই যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত রবিবার ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগীদের খাবার সরবরাহকারী ঠিকাদার আজহারুল হক ওরফে আতিকের সঙ্গে ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনের সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনুকে জড়িয়ে একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় ‘হাসপাতালে ধনু এমপির শাসন’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। বিক্ষোভ কারীদের দাবি, ওই প্রতিবেদনে এমপিকে উদ্দেশ্য মূলকভাবে ওই ঠিকাদারের সঙ্গে জড়ানো হয়েছে। তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সোহেলী শারমিনের প্রত্যাহার এবং শাস্তির দাবিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা। বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী মোহাম্মদ ইউনূস আলী শেখ বলেন, যুদ্ধকালীন সাব-সেক্টরের দায়িত্বে ছিলেন মেজর আফসার উদ্দিন। তাঁর ছেলে ভালুকার সাংসদ কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু। ছাত্রলীগ থেকে সততার সঙ্গে রাজনীতি করে হয়েছেন সাংসদ। তাঁর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সোহেলী শারমিন। এটি কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

ভালুকা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের নেতা আশিকুর রহমান বলেন, হাসপাতালের রোগীদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক অসৌজন্য মূলক আচরণ করে সোহেলী শারমিন। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করায় সোহেলি শারমিন নানা ভাবে অপপ্রচার চালাচ্ছে এমপির বিরুদ্ধে।

ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সোহেলী শারমিনের সঙ্গে বুধবার দুপুরে কথা বলতে চাইলে তিনি দৈনিক অধিকারকে বলেন, গণমাধ্যমে কথা বলা নিষেধ আছে।

এদিকে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উন্নয়নের দেড় কোটি টাকার হিসেবের গড় মিলের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ জুলাই একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমিটির সভাপতি ও ময়মনসিংহ ১১ (ভালুকা) আসনের সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু। পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছিল ভালুকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে। কমিটিকে ১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছিল। এরপর আরও আট মাস চলে গেলেও তদন্তের কাজই শুরু করেননি ওই কমিটির সদস্যরা।

আরও পড়ুন : রাঙ্গুনিয়ায় বই মেলায় ২০টাকায় বই

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর হাসপাতালের বিভিন্ন ধরণের অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করতে এস এ টিভির ময়মনসিংহ প্রতিনিধি আওলাদ রুবেল ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। সেখানে সোহেলী শারমিন প্রথমে তাঁর সঙ্গে অসৌজন্য মূলক আচরণ শুরু করেন। এক পর্যায়ে এস এ টিভির ক্যামেরা কেড়ে নিয়ে ভেঙে ফেলার চেষ্টা করেন ওই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। এরপর ওই সাংবাদিক ময়মনসিংহের সিভিল সার্জনের সঙ্গে কথা বলে ক্যামেরা উদ্ধার করেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড