• বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চার ট্রিপ দিয়ে আবারো শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌপথে ফেরি বন্ধ

  মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি

২৬ অক্টোবর ২০২০, ২০:০২
মুন্সিগঞ্জ
ফাইল ফটো

১১ দিন বন্ধ থাকার পর মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি নৌপথে সোমবার (২৬ অক্টোবর) সকাল থেকে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছিল। একইদিন দুই ঘাট থেকে মাত্র চারটি ট্রিপ দেওয়ার পর আবারো বন্ধ হলো ফেরি।

ঘাট কর্তৃপক্ষ বলছে, পদ্মা সেতুর চ্যানেল দিয়ে ফেরি চলছিল। তাদের নিষেধাজ্ঞার কারণে ফেরি বন্ধ করা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ মহা-ব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম জানান, সোমবার সকাল ৭ টা থেকে পদ্মা সেতুর কাজে ব্যবহৃত চ্যানেল দিয়ে সীমিত আকারে পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল শুরু করেছিল। মাত্র চারটি ছোট ফেরি চালানো হচ্ছিল। ফেরি গুলো দুই ঘাট থেকে দুটি করে চারটি ট্রিপ নিয়ে যাওয়া আসা করেছে। এরপরই সেতু কর্তৃপক্ষ তাদের চ্যানেলে ফেরি চালাতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। তাই আবারো ফেরি চলাচল বন্ধ হলো।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আব্দুল কাদের বলেন, মূল সেতুর চ্যানেল দিয়ে জাজিরা হয়ে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে যাওয়ার জন্য অনুমতি দিয়ে ছিলাম। অথচ ফেরি কর্তৃপক্ষ সে চ্যানেল বাদ দিয়ে ৪০০ কেবি বিদ্যুৎ লাইনের চ্যানেল দিয়ে ফেরি চালানো শুরু করে। এ চ্যানেল দিয়ে সেতুর কাজের মালামাল বহন করা হয়। এ চ্যানেল দিয়ে ফেরি চলায় সকালেই সাত নম্বর টাওয়ারের কাছে একটি দুর্ঘটনা ঘটে। এ কারণেই ফেরি চালাতে নিষেধ করা হয়েছে।

শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক (টিআই) মো.হিলাল উদ্দিন জানান, কয়েকটি ফেরি চলছিল। সেগুলো দিয়ে গাড়ি পার করা হয়। ঘাট এখন সুনসান। কোন গাড়ি নেই।

ঘাট ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তীব্র স্রোত ও নাব্যতা সংকটে তিন মাস ধরেই এ নৌপথে ফেরি চলাচল ভীষণভাবে ব্যাহত হচ্ছে। গত আগস্ট মাসে মাঝে মধ্যেই রাতে বন্ধ রেখে দিনে ফেরি চালানো হতো। প্রতিদিন মাত্র ৪-৫টি ছোট ফেরি চলাচল করতো এই নৌপথে। সংকট তীব্র আকার ধারণ করে সেপ্টেম্বর জুড়ে। সেপ্টেম্বর মাসে পাঁচ দফায় ১৭ দিন ফেরি বন্ধ ছিল এবং চলতি মাসের তিন দফায় ১১ দিন ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সব শেষ গত ১৫ অক্টোবর সকাল ছোট ৪-৫ টি ফেরি চলছিল। সেদিন দুপুরের দিকে আবারো নাব্যতা সংকট দেখা দেয়। ফলে সেদিন বিকেল থেকে গতকাল রবিবার পর্যন্ত টানা ১১ দিন ফেরি বন্ধ ছিল। এবার বর্ষা মৌসুম থেকে এ নৌপথের যে দূর অবস্থা শুরু হয়েছে সেটা কোন ভাবেই কাটছেনা।

ঘাট সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা গত কয়েক মাস ধরেই লৌহজং চ্যানেল খনন করছে। কি খনন করছে তারাই জানে। কোন ফায়দা হচ্ছেনা। ওই চ্যানেল সচল হলেই সব ধরনের ফেরি চলতে পারবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড