• বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিকাশে ভুলে চলে আসা ৩০হাজার টাকা বুঝে পেল মালিক

  বাঁশখালী প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩০
বাঁশখালী
বিকাশের টাকা ফিরিয়ে দিচ্ছে

প্রতারণা করে বিকাশের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ অহরহ। আবার ভুল নাম্বারে বিকাশের টাকা চলে গেলে সে টাকা পাওয়া যায়না সহজে। এমনও ঘটনা ঘটে যে, প্রকৃত মালিক ফোন করেও ভুল একাউন্টে চলে আসা টাকার দাবি করলেও অপর প্রান্ত থেকে ফোন নাম্বার বন্ধ করে রাখে। এভাবে অনেকেই নিজের ভুলের দণ্ড দিয়েছে কত তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।

তবে, ব্যতিক্রম একটি ঘটনা ঘটেছে শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে। বাঁশখালী উপজেলার বাবুল নামের এক যুবকের মোবাইলে বিকাশ নাম্বারে ৩০ হাজার টাকা ভুলে চলে এসেছে। এ নিয়ে বেশ কয়েকটি ফোন নাম্বার থেকে টাকার দাবি তুলে ওই যুবকের কাছে ফোন আসে। এতে কে আসল মালিক তা নিয়ে বিব্রত হয় যুবকটি।

যুবকটি ওইদিন বিকাল ৪টার সময় বাঁশখালী থানার ফেইসবুক একাউন্টে ট্যাগ করে বিকাল ৪টার সময় (আমার বিকাশ নাম্বারে ভুলে ৩০ হাজার টাকা চলে আসছে। আমি টাকাগুলো কিভাবে ফিরিয়ে দিতে পারি সকলের পরামর্শ চাই। একাধিক নাম্বার থেকে ফোন আসতেছে তাই আমি বিব্রত।) এরকম একটি পোষ্ট করে যুবকটি।

সর্বশেষ আব্দুর রহিম আজাদ নামের এক ব্যক্তি বেশ কয়েকবার ফোন করে ভুলে চলে আসা টাকা তার বলে দাবি করেন। ফোনে কথা বলে বাবুল নামের যুবকটি জানতে পারলো আব্দুর রহিমের নিজ বাড়ী পটিয়া শান্তির হাটে। সে চট্টগ্রাম শহরে চাঁন্দগাও থানা খাজা রোড এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে। বাবুল তাকে স্থানীয় খুলশী থানায় যোগাযোগ করতে বলে। পরে খুলশী থানায় কর্মরত সঞ্জয় দাশ গুপ্ত ও থানার ডিউটি অফিসার এস আই মোরশেদ আলমের সহযোগিতায় তদন্ত করে টাকার প্রকৃত মালিকের সন্ধান পাওয়া যায়। টাকার প্রকৃত মালিক আব্দুর রহিম আজাদ।

আব্দুর রহিম আজাদ জানান, 'আমি আমার শ্বশুরের কাছে ৩০ হাজার টাকা একজন ব্যক্তির মাধ্যমে বিকাশের দোকানে পাঠাতে গিয়েই ভুল নাম্বারে আমার টাকা চলে যায় বাঁশখালীর জনৈক বাবুল নামের যুবকর বিকাশ নাম্বারে। পরে তাকে ফোন দিলে সে প্রকৃত মালিক কিনা সত্যতা যাচাইয়ের জন্য থানা পুলিশের সহযোগিতা নিতে বলেন। তারপর আমি খুলশী থানায় গিয়ে বিষয়টি অবগত করি। আজ রাতে আমার টাকা আমি পুনরায় ফিরিয়ে পেয়েছি। এজন্য বাবুলকে ও খুলশী থানা পুলিশকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।'

ছাত্রলীগ নেতা, বাশঁখালী থানা ছাত্রলীগের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক, বাঁশখালী থ্রি স্টার ফুটবল একাডেমীর কোচ আবু সাঈদ বাবুল বলেন, 'আমার ফোনে সকাল ১১টা ২৫ মিনিটে অপরিচিত একটি বিকাশ নাম্বার থেকে ৩০ হাজার টাকা চলে আসে। এর পর ৪টা নাম্বার থেকে ফোন করে তারা নিজেদের টাকা বলে দাবি করাতে আমি বিব্রত হই। পরে সর্বশেষ আব্দুর রহিম আজাদ নামে এক ব্যক্তি বারবার সে টাকার মালিক দাবী করাতে তাকে থানা পুলিশের মাধ্যমে সত্যতা যাচাই করতে বলি। খুলশী থানা সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত মালিকের সন্ধান পেয়ে আমাকে ফোন দিলেই আমি প্রকৃত মালিকের বরাবরে বাঁশখালী থানার অপারেশন অফিসার নাজমুল হাসান জয়ের মাধ্যমে টাকা ফেরত দিই।'

আরও পড়ুন : ভোলায় অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে পাঁচ জনের জেল

বাঁশখালী থানার অপারেশন পুলিশ অফিসার নাজমুল হাসান জয় বলেন, 'বাঁশখালীর যুবক আবু সাঈদ বাবুল নিজেই থানায় এসে আমার মাধ্যমে প্রকৃত মালিকের বরাবরে ভুলে চলে আসা টাকা বিকাশে হস্তান্তর করে। এতে বাবুল নিজেই সততার পরিচয় দিয়েছেন।'

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড