• বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৩ কোটির টাকার বেশি ক্ষতি

  ঝালকাঠি প্রতিনিধি

০২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪:২২
ঝালকাঠি
বন্যায় ঝালকাঠিতে সবজির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

গত আগস্ট মাসের ১৮ তারিখে পানি বৃদ্ধি হয়ে দক্ষিণ উপকূল তলিয়ে যায়। সপ্তাহব্যাপী এ বন্যায় ঝালকাঠি জেলায় ৩ কোটিরও বেশি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমন, গ্রীষ্মকালীন সবজি, পেঁপে ও আখের ক্ষতি হয়েছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ২ কোটি ৫লাখ ৮হাজার ৯৬০ টাকা ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করলেও মাঠ পর্যায়ে আরো ১ কোটিরও বেশি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ঝালকাঠি জেলার ৪ উপজেলার ২টি পৌরসভা ও ৩২টি ইউনিয়নের ১৮হাজার ৮শ ৮১ হেক্টর জমিতে উফশী আমন বীজতলা, স্থানীয় আমন বীজতলা, উফশী আমন, স্থানীয় আমন, গ্রীষ্মকালীন সবজি, পান, পেঁপে চাষ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৭হাজার ৮শ কৃষকের ৭হাজার ৮শ ৩০ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পরিসংখ্যানে উল্লেখ করা হয়েছে, আমন বীজতলার কোন ক্ষতি হয়নি। আবাদকৃত আমন (উফশী ও স্থানীয় জাত) ১৪হাজার ২শ হেক্টর জমির ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৭হাজার ২শ হেক্টর জমির ফসল। এতে ৮৩লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। ১৫শ ৮০ হেক্টর জমিতে আবাদকৃত গ্রীষ্মকালীন সবজির ৪১০ হেক্টর জমির ফসলে ৭৩ লাখ ৮০হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। পান চাষের ৪শ ৮৬হেক্টর জমির বরজের ১৬০ হেক্টর জমিতে পানের বরজে ২৬ লাখ ৪০হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। পেঁপে চাষের ৩শ ৫০হেক্টর জমির বরজের ৫৮ হেক্টর জমিতে পানের বরজে ২২ লাখ ৫০হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এ ক্ষতির মধ্যে আখ চাষ, আমন ও উফশী আমন বীজতলার পরিসংখ্যান উল্লেখ করেনি কৃষি বিভাগ। তাছাড়াও প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র পর্যায়ের অনেক চাষিদের তথ্য এ পরিসংখ্যানে তালিকাভুক্ত নেই।

তৃণমূল পর্যায়ের কৃষকরা জানান, কৃষি কর্মকর্তারা সরেজমিনে পরিদর্শন না করেই ধারণা নির্ভর ক্ষতির পরিমাণের অনেক কম নির্ধারণ করে তালিকা করেছে। যা বাস্তবতার সাথে শতভাগ মিল নেই।

ঝালকাঠি জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ফজলুল হক জানান, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে। সরকারি প্রণোদনা বা ভর্তুকির কোন বরাদ্দ আসলে তা ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে।

আরও পড়ুন : ফেনসিডিল পাচারের সময় চিকিৎসকসহ আটক ২

ক্ষতির পরিসংখ্যান ধারণা নির্ভর করে যদি কোন কর্মকর্তা করে থাকনে তাহলে প্রমাণ সাপেক্ষে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড