• রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, ৩ আসামির ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

০৯ আগস্ট ২০২০, ২৩:০৪
রিমান্ড
ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, ৩ আসামির ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর (ছবি : দৈনিক অধিকার)

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় মধ্যরাতে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত ৩ আসামিকেই গ্রেপ্তার করেছে রাজারহাট থানা পুলিশ।

শনিবার (৮ আগস্ট) রাতভর অভিযান চালিয়ে আসামিদের অবস্থান শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তাররা হলো- রাজারহাট উপজেলার ছিনাই গ্রামের উমর আলীর ছেলে আব্দুস সালাম (২৫), লালমনিরহাট জেলার মহেন্দ্রনগর এলাকার করিমের ছেলে আব্দুল মালেক (২৭) ও রাজারহাটের পীরমামুদ গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৩২)।

রবিবার (৯ আগস্ট) দুপুরে কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান জেলা পুলিশ হলরুমে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক সংবাদ ব্রিফ্রিংয়ে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটির বর্ণনা দেন।

এর আগে একই দিন সকালে রাজারহাট থানা পুলিশ আসামিদের কুড়িগ্রাম চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করেন। পরে সেখানে শুনানি শেষে পুলিশের পক্ষ থেকে রিমান্ড চাওয়া হলে বিজ্ঞ বিচারক তিন আসামির ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ সুপার জানান, ঘটনার পরপরই র‌্যাব, সিআইডি, পিবিআই এবং পুলিশ পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ চাঞ্চল্যকর এই মামলাটি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মাহমুদ হাসানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম গঠন করেন। এই টিম ব্যাপক অনুসন্ধান এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে প্রথম ক্লু হাতে আসে। এ সময় তাদের অবস্থান ছিল ঢাকায়। একই সঙ্গে জানা যায়, আসামিরা সেখানে রিকশা চালানোর কাজ যোগ দিয়েছে।

পরে পুলিশ ঢাকায় গিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হতে না হতেই আসামি আব্দুস সালাম ফিরে আসে কুড়িগ্রামে। একপর্যায়ে পুলিশ সালামের সাথে অপর আসামি আব্দুল মালেকের স্ত্রীর পরকীয়ার সূত্র ধরে তাকে শনাক্ত করে। পরে পুলিশের ফাঁদে আটকা পরে সালাম। এরপর আব্দুল মালেক এবং সর্বশেষ আটক হয় আবুল কালাম আজাদ।

গ্রেপ্তারদের মধ্যে আব্দুস সালামের বিরুদ্ধে রাজারহাট, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট ও রংপুরে ৫টি চুরির মামলা রয়েছে। এছাড়া আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে লালমনিরহাট, রাজারহাট ও কুড়িগ্রামে একটি করে মোট ৩টি মামলা রয়েছে। একই সঙ্গে আসামিদের একাধিক স্ত্রী রয়েছে এবং তারা পরকীয়ার সাথেও যুক্ত।

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান দৈনিক অধিকারকে জানান, তিনজন আসামি গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক তদন্তে ডাকাতির উদ্দেশ্যে গিয়ে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের পর ঘটনার প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলেও উল্লেখ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।ৎ

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুলাই গভীর রাতে রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর বাড়িতে হানা দিয়ে তাকে ছুরিকাঘাতে আহত করে একদল দুর্বৃত্ত। হামলায় ওই ছাত্রীর বাবা রেজা শাহ পাহলভি (৪৮) ও মা শাহনাজ পারভীন (৩৮) গুরুতর আহত হন। পরে দুর্বৃত্তরা বাড়িতে থাকা স্বর্ণালংকার ও ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা লুটসহ ওই ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর বাড়ির পাশে একটি জঙ্গলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা।

আরও পড়ুন : গৃহবধূকে গণধর্ষণসহ মারপিট, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

এ ঘটনার পরদিন অজ্ঞাত পরিচয় ৩ জনকে আসামি করে রাজারহাট থানায় মামলা দায়ের করা হয়। পরে আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে এলাকায় দু’দফা মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসী।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড