• সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অভাবের তাড়নায় নবজাতককে বিক্রি!

  সাভার প্রতিনিধি

২৯ জুন ২০২০, ২১:০৭
ধামরাই
নবজাতকের মা নাজমা বেগম এবং পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কামাল হোসেন

ধামরাইয়ে অভাবের তাড়নায় এক নবজাতককে ৬০ হাজার টাকায় বিক্রি করার তিন দিন পর নবজাতকটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে ধামরাই থানা পুলিশ।

এসময় নবজাতককে বিক্রি ও কেনার অভিযোগে রাবেয়া মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের এক নার্সসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এর আগে বরিবার রাতে সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকা থেকে নবজাতককে উদ্ধার করে ওই রাতেই ২টার দিকে মায়ের কুলে ফিরিয়ে দেয় পুলিশ। 

গত ২৫ শে জুন (বৃহস্পতিবার) রাতে ধামরাই সুতিপাড়া ইউনিয়নের বাটারখোলা এলাকার গুচ্ছ গ্রামের মৃত বাবুল হোসেনের স্ত্রী নাজমা বেগম ধামরাইয়ের ডাউটিয়া এলাকার রাবেয়া মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে একটি নবজাতক (ছেলে সন্তান) জন্ম দেন।

এর পরে তিনি অভাবের তাড়নায় রাবেয়া মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নার্স সাদিয়া খাতুনের পরামর্শে সাভারের এক দম্পতির কাছে ৬০ হাজার টাকায় নবজাতককে বিক্রি করে দেন। 

নবজাতক বিক্রির এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পরলে তা পুলিশের নজরে আসে। পরে পরামর্শ কারী ও নবজাতক বিক্রিতে সহায়তা করা হাসপাতালের নার্স সাদিয়াকে গতকাল আটক করে পুলিশ। নার্সের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাতেই অভিযান চালিয়ে রাজফুলবাড়িয়া এলাকা থেকে নবজাতকটিকে উদ্ধার করে পুলিশ। 

এসময় ওই নবজাতককে কেনার অভিযোগে হেলাল উদ্দিন ও সাথী আক্তার নামে এক দম্পতিকে আটক করে করা হয়। এর পর রাত ২টার দিকে নাজমা বেগমের বাড়িতে গিয়ে নবজাতক কে মা নাজমার কুলে ফিরিয়ে দিয়ে আসেন পুলিশ। 

শিশু সন্তান জন্মের ও বিক্রির চার দিন আগে মারা যান নাজমার বৃদ্ধ মা। এর দুই মাস আগে নাজমার স্বামী বাবুল হোসেন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। এবং এরও ৭ মাস আগে মারা গেছেন নাজমার বাবা আক্কাস আলী। 

নাজমার স্বামী রিক্সা-সাইকেলের মেকার এবং বাবা ছিলেন দিনমজুর। স্বামী ও বৃদ্ধ বাবার আয়ের টাকাতেই চলত ৬ সদস্যের সংসার।  

ভিটে মাটি ছাড়া নাজমা তার বাবা-মা, স্বামী, ৬ বছরের ছেলে নাজমুল ও ৮ বছরের মেয়ে রুকছানাকে নিয়ে থাকতেন ধামরাই উপজেলার সুতিপাড়া ইউনিয়নের ভাটারখোলা গুচ্ছগ্রামে। সেখানে তারা জাহাঙ্গীর আলমের নামে বরাদ্দকৃত সরকারি ঘরে ভাড়া থাকেন। 

নাজমা বলেন, রাতে এসে পুলিশ আমার ছেলেকে আমার কুলে ফিরিয়ে দিয়ে গেছে। এবং তিন হাজার টাকা দিয়ে বলেছে সরকারি ভাবে আমাকে আরো সাহায্যে করবে তারা।

এবিষয়ে ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, নবজাতককে উদ্ধার করে তার মা নাজমার কুলে ফিরিয়ে দেয়া হইয়েছে। এবং নাজমাকে কিছু নগদ অর্থও দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে সরকারি ভাবে তাকে সাহায্য-সহযোগিতা  করা হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড