• বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খুলনায় ম্যাজিস্ট্রেটের নমুনায় করোনা নেগেটিভ, ঢাকায় পজিটিভ!

  সারাদেশ ডেস্ক

২৮ মে ২০২০, ১৫:৩২
করোনা পজিটিভ
করোনা পজিটিভ (প্রতীকী ছবি)

খুলনা জেলা প্রশাসনের এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (৩০) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) দুপুরে ঢাকার একটি হাসপাতালে তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। বর্তমানে তিনি ঢাকায় নিজ বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন।

খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বাসক (মিডিয়া সেল) জানান, খুলনা জেলা প্রশাসনের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের এক সপ্তাহ আগে সামান্য করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। তখন খুলনা মেডিকেল কলেজের (খুমেক) পিসিআর ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার ঢাকার একটি হাসপাতালে তার করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি এখন সুস্থ আছেন এবং ঢাকায় বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার অবস্থা গুরুতর হলে হাসপাতালে নেওয়া হবে।

এর আগেও খুমেক ল্যাবের নমুনার ফলাফল নেগেটিভ ধরা পড়ার পর রোগীরা ঢাকার পরীক্ষা করিয়ে ফলাফল পজিটিভ পেয়েছেন। সর্বশেষ বুধবার (২৭ মে) সাতক্ষীরায় দুই নারীর ঢাকায় আইইডিসিআরের রিপোর্টে করোনা ধরা পড়ে। ওই দুজনের একই নমুনা প্রথমে খুলনায় পরীক্ষা হলে রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছিল।

জানা যায়, উপজেলার সখীপুর ইউনিয়নের এক গৃহবধূর (৪৫) জ্বর, সর্দি ও কাশি থাকায় করোনা সন্দেহে ১৪ মে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ১৭ মে রিপোর্ট আসে নেগেটিভ। কিন্তু ওই নারীর লক্ষণ নিয়ে তখনো সন্দেহ থাকায় সেই নমুনা ঢাকার আইইসিডিআরে পাঠানো হয়। পরে ঢাকা থেকে মোবাইলে খুদে বার্তায় জানানো হয় ওই গৃহবধূর করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ।

এছাড়া বল্লী ইউনিয়নের এক কলেজছাত্রের সম্প্রতি করোনা উপসর্গ থাকায় তার পরীক্ষা করলে পজিটিভ আসে। ওই সময় ছাত্রের মায়ের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। সেখানে প্রতিবেদন নেগেটিভ এলে সেই নমুনা আবারও পাঠানো হয় ঢাকার আইইডিসিআরে। একপর্যায়ে ঢাকা থেকে খুদে বার্তায় জানানো ওই নারীর পরীক্ষার ফল পজিটিভ।

আরও পড়ুন : ব্যবসায়ীর গুদামে মিলল ৫০ টন সরকারি গম, আটক ৩

একই ব্যক্তির নমুনার ফলাফল দুই জায়গায় ভিন্ন কেন হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ বলেন, খুমেকের ল্যাবে কোনো সমস্যা নেই। বলাই আছে একটি আধুনিক পিসিআর ল্যাবে ৭০ ভাগ ফলাফল সঠিক হয়। ৩০ ভাগ ফলাফল ভুল হতে পারে। এটা হতে পারে নেগেটিভ বা পজিটিভ। নমুনা সংগ্রহের সময় গলায় ভাইরাসের উপস্থিতি কম-বেশি থাকার উপর নির্ভর করে ফলাফল।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড