• বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

‘চাইল-আলু-এ্যাংকার পুদানমুন্ত্রীরির ঈদ উপুহার’

  খোকসা প্রতিনিধি

২৬ মে ২০২০, ১৯:০৬
ইদ উপহার বিতরণের দৃশ্য
ইদ উপহার বিতরণের দৃশ্য

কুষ্টিয়ায় করোনাকালে কর্মহীন ও দুস্থদের জন্য প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ঈদ উপহার নামে খাবারের প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে। তবে এত দেখা দিয়েছে অসন্তোষ ও মিশ্র প্রতিক্রিয়া। যারা উপহার পাচ্ছেন তারা বলছেন, শুধু চাল আলু ও অ্যাংকার ডালের প্যাকেট আবার কীভাবে ঈদ উপহার হয়? এই দুর্দিনে যদি অন্তত একটু সেমাই ও চিনি দিতো তাহলেও অন্তত ঈদের স্বাদটা পাওয়া যেতো।

রবিবার সকাল থেকে জেলার পাঁচটি পৌরসভা ও ৬৪টি ইউনিয়নের অসহায় দুস্থদের মাঝে এসব ঈদ উপহার বিতরণ করা হচ্ছে।

জেলাজুড়ে সরকারি এসব ত্রাণ বিতরণের প্রধান সমন্বয়কারী জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, রবিবার সকাল থেকে কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলার লক্ষাধিক পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত এই ঈদ উপাহারের প্যাকেট তুলে দেয়া হয়। এছাড়া জেলার ৭৮ হাজার ব্যক্তির মাঝে ঈদ সামগ্রী ও শিশু খাদ্য বাবদ ২৫০০ টাকা মোবাইল ক্যাশ দেয়া হয়েছে।

তবে এই সুবিধাভোগীদের মধ্যে সিংহভাগেরই অভিযোগ, আমরা মোবাইলে কোনো টাকা পাইনি।

কুমারখালী উপজেলার নন্দলালপুল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের হাজেরা খাতুন (৫২) বলেন, ‘চাইল আলু এ্যাংকার পুদানমুন্ত্রীরির ঈদ উপুহার!’ ‘আমি মনে করিছিলাম যাক এই উপহার পেকেটের মুদি সিমাই-চিনিও আচে’ ‘কিন্তু ইয়ার ভিতর দেকি এক কেজি আলু, এক কেজি এ্যাংকার আট কেজি চাইল আচে। ছেলেডা অটো চালাইতি, তাও আড়াই মাস বাড়িত বইসি, হাতে এ্যাকন কোন ট্যাকা নি যে ইকটু সিমাই-চিনি কেনবো।’

কুমারখালী পৌসভার ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ভ্যান চালক ইমরুল বলেন, ‘সরকার এই দুর্দিনে যা দেচে তাই দিয়ে বউ-বাচ্চা নিয়ে খাইয়ে তো বাঁচি, বাঁইচি থাকলি ঈদ তো আরও আসপি, তখন না হয় সিমাই-চিনি খাবো। মোবাইলে ট্যাকা আসার কতা ছিলি, তা তো আসিনি, কি সপ জালিয়াতি নাকি হয়চে, সেজন্যি নাকি ওই ট্যাকা দিয়া বন্ধ কইরি দেচে সরকার।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুমারখালী পৌরসভার মেয়র শামসুজ্জামান অরুণ অসৌজন্যমূলক আচরণ করে সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলতে সম্মত হননি।

প্রসঙ্গত, গত এপ্রিলে কর্মহীন ও অসচ্ছল পরিবারের জন্য সরকারি ওএমএসের চাল আত্মসাতের অভিযোগে কুমারখালী পৌরসভার মেয়র শামসুজ্জামান অরুণসহ সাত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সেলিনা খাতুন স্ব-প্রণোদিত মামলা করেন এবং সংশ্লিষ্ট কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জকে তদন্তসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড