• বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শরীয়তপুর পৌরসভার প্রায় ৩০ টি পরিবার পানি বন্দি

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি

০২ মে ২০২০, ১০:২০
শরীয়তপুর
পানিবন্দি এলাকা

শরীয়তপুর পৌরসভার আংগারিয়া ৯ নং ওয়ার্ড কাশাভোগ এলাকায় প্রায় ৩০ টি পরিবার পানি বন্দি হয়ে রয়েছেন। জনপ্রতিনিধিরা ভোটের সময় প্রতিশ্রুতি দিলেও এখনো পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হয়নি। স্কুলের শিক্ষার্থী সহ শত-শত মানুষের যাতায়াতের পথ সহ বসত বাড়ি পানিতে তলিয়ে রয়েছে। 

এছাড়াও শরীয়তপুর পৌরসভা প্রথম শ্রেণির হলেও সে অনুযায়ী নাগরিক সুবিধা পাচ্ছে না পৌরবাসী এমন অভিযোগও করেন এলাকাবাসী।   

এমন অভিযোগের ভিত্তিতে ১ মে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩ টায়  সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রভাবশালীরা প্রাচীন খালগুলো ভরাট করে পাকা ও আধপাকা স্থাপনা নির্মাণ করে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ করে দিয়েছে। পাশাপাশি শহরের পুরনো শতাধিক পুকুর, জলাশয় ব্যক্তিগত উদ্যোগে বালু দিয়ে ভরাট করায় পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। গত কয়েক দিনের ঝড়-বৃষ্টির কারণে প্রায় ৩০টি বাড়ির মানুষ পানি বন্দি হয়ে আছেন।      

এলাকার মান্নান বেপারি বলেন, আমরা পৌরসভার মেয়র মহোদয়কে জানিয়েছি এবং ডেকেও এনেছি। আমরা এই রাস্তা দেখিয়েছি। নতুন রাস্তা নির্মাণের সময় আমরা বলেছিলাম। পানি নিষ্কাশনের জন্য একটু জায়গা রাখলে আমাদের জন্য ভালো হবে। সেটা আর করা হয় নাই। তার জন্য আমরা পানি বন্দি হয়ে আছি। ঘর থেকে বের হতে পারিনা, টয়লেটে যেতে পারি না, একটু পানি ব্যবহার করতে পারতেছি না। আমাদের পারিবারিক ভাবে থাকাই কষ্ট।      

আ. গণি মিয়া বলেন, আপনার কি ভাবে কি করবেন। ডিসি সাহেব আইছে, পৌরসভার মেয়র সাহেব আইছে। রাস্তা জুন মাসে করার কথা। হ্যায়া করতেই আছে। আজ ২/৩ বছর যাবত। আসা যাওয়া পর্যন্তই। তাছাড়া কোন কাজ হয় না।        

আসমতারা বলেন, পানিতে আমাদের ঘর দুয়ার তলিয়ে থাকে, বাচ্চাদের নিয়ে বেড় হতে কষ্ট হয়ে যায়।

আয়শা বেগম বলেন, আমরা গরিব মানুষ দুই বেলা কাজ করে খেতে হয়। হাঁটু পানি পার হয়ে বাজার ঘাটে কাজ করতে যেতে হয়। হাজার দিন আছাড় খেয়ে পইড়া যাই। আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রহায়ণ মাস পর্যন্ত পানি থাকে এই জায়গায়। মেয়র সাহেবের কাছে অনুরোধ আমাদের রাস্তা ও পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থাটা যেনো করে দেয়। এছাড়া আমাদের কোন দাবি নাই। 

বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর এ পৌর শহরে রয়েছে মাত্র ৩/৪ কিলোমিটার ড্রেনেজ ব্যবস্থা। যার ৮০ শতাংশই রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অকেজো ও ভরাট অবস্থায় রয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই পানির নিচে তলিয়ে যায় পৌর শহরের অধিকাংশ এলাকা। 

এ বিষয়ে ৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সঞ্জীব নাগ দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমি এলাকা ঘুরে দেখেছি। পৌরসভার ফান্ডের অবস্থা অপ্রতুল। এটা ভেতরের কথা। তবে এটা বৃষ্টির পানি নেমে যাবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড