• শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

করোনার সংক্রমণ এড়াতে বরিশাল-মাদারীপুরের সীমান্ত লকডাউন

  বরিশাল প্রতিনিধি

২২ মার্চ ২০২০, ২৩:৩১
লকডাউন
লকডাউন ঘোষণার পর বাঁশ দিয়ে দুই উপজেলার সীমান্তবর্তী পথ বন্ধ করে দেওয়া হয় (ছবি : দৈনিক অধিকার)

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বরিশালের গৌরনদী ও মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। ওই এলাকার সড়কপথ থেকে শুরু করে পালরদী নদীর ১২টি খেয়াঘাট লকডাউন করে পাহারা বসিয়েছে পুলিশ।

মাদারীপুরে করোনায় আক্রান্ত রোগী চিহ্নিত হওয়ায় বরিশালে যাতে এ ভাইরাস ছড়িয়ে না পড়তে পারে এজন্য এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।

সীমান্ত বন্ধ করার খবরে রবিবার (২২ মার্চ) দুই প্রান্তে শত শত মানুষ জড়ো হলে পুলিশ বাঁশ দিয়ে পথ আটকে দেয়।

গৌরনদী উপজেলার টরকী বন্দর খেয়া ঘাটের মাঝি রাকিব হাওলাদার দৈনিক অধিকারকে বলেন, ‘পালরদী নদীতে আমরা প্রতিদিন ৩টি খেয়া নৌকায় করে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার প্রায় অর্ধ লাখ মানুষকে পারাপার করে আসছিলাম। প্রতিদিন কালকিনি উপজেলার পূর্বাঞ্চলের প্রায় ২ সহস্রাধিক মানুষ ও মালামাল পারাপার করেই জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। করোনার বিস্তার রোধের জন্য শনিবার (২১ মার্চ) থানা পুলিশ খেয়া ঘাটে এসে নৌকায় পারাপার বন্ধ করে দেয়। এমনকি রাত-দিন নদীর তীরে গ্রাম পুলিশসহ থানা পুলিশ প্রতিনিয়ত টহল দিচ্ছে।’

এ দিকে, স্থানীয়রা জানান, সম্প্রতি প্রবাসী হাফিজ ফকির (২৫) ওমান থেকে বাড়িতে এসে হাট-বাজার ও এলাকায় ঘোরাফেরা করতে থাকে। এর কয়েকদিন পর সে সর্দি-কাশি ও জ্বরে আক্রান্ত হলে গৌরনদী হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে যায়। পরে সেখান থেকে পালিয়ে এসে আত্মগোপন করেছে। ওই দিন থানার এসআই আসাদুজ্জামান খান হাফিজের বাড়িতে এসে তাকে না পেয়ে পরিবারের ৬ সদস্যকে ১৪ দিন ঘরের মধ্যে থাকার নির্দেশ দিয়ে যান। সেই দিন থেকে হাফিজ আত্মগোপনে থাকলেও তার পরিবারের সদস্যরা ঘরের ভেতরই থাকছেন। কিন্তু বিদেশফেরতরা হোম কোয়ারেন্টিনে না থেকে অবাধে ঘোরাফেরা করার কারণে এলাকাজুড়ে করোনার আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে গৌরনদী থানার ওসি (তদন্ত) মো. মাহাবুবুর রহমান জানান, মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার লোকজন দিন-রাতে গৌরনদীতে অবাধে যাতায়াত করে আসছে। তাই করোনা সংক্রমণ রোধের জন্য শনিবার থেকে টরকী বন্দরের পালরদী নদীর ওপর নির্মিত ব্রিজে পুলিশ পাহারা দিচ্ছে। একই সঙ্গে গৌরনদীর সীমান্তবর্তী পালরদী নদী ও ভূরঘাটা-বাকাই খালের ১২টি জায়গায় খেয়া নৌকায় লোকজন পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যাতে মাদারীপুরের বিভিন্ন উপজেলার মানুষ গৌরনদীতে আসতে না পারে এজন্য টরকী বন্দর, গৌরনদী বন্দর, গৌরনদী মাঝের খেয়া ঘাট, পিঙ্গলাকাঠি বাজার, হোসনাবাদ বাজার, কয়ারিয়া, কুতুবপুর খেয়াঘাট ও ভূরঘাটা-বাকাই খালের বাকাই বাজার, মেদাকুল বাজার, সালতা খেয়া ঘাটসহ ১২টি খেয়া ঘাটে নৌকায় কালকিনিবাসীকে পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : বরিশালে প্রবাসী সন্দেহে বৃদ্ধকে গণধোলাই

বিষয়টি নিশ্চিত করে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দৈনিক অধিকারকে বলেন, মাদারীপুরে করোনায় আক্রান্ত রোগী চিহ্নিত হওয়ায় বরিশালে যাতে এই ভাইরাস ছড়িয়ে না পড়তে পারে এজন্য এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি করোনা রোধে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ শয্যাবিশিষ্ট একটি আইসোলেশন ইউনিট খোলা হয়েছে। এছাড়া উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ও ১টি পৌরসভার ৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে আইসোলেশন হিসেবে ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ওডি/আইএইচএন

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড