• মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মহানগরীর বেশিরভাগ মানুষই গৃহবন্দি!

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

২২ মার্চ ২০২০, ১৯:২৩
চট্টগ্রাম
ফাকা মহানগরী

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে নভেল করোনা ভাইরাস! পৃথিবী নামক গ্রহে বসবাস করা সারা বিশ্বের মানুষকে কাবু করে ফেলেছে। অধিকাংশ দেশ অচল হয়ে পড়েছে। লকডাউন করা হচ্ছে একের পর এক শহর। বাংলাদেশের পরিস্থিতিও ধীরে ধীরে আশঙ্কার দিকে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ২৪ জন আক্রান্ত ও দুজন মারা যাওয়ার ঘটনা মিডিয়ায় আসছে। বাংলাদেশে এখনো মহামারি আকারে না ছড়ালেও দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলছেই।

এই পরিস্থিতিতে প্রশাসনের কঠোর সর্তকতা ও মোড়ে মোড়ে মাইকিং করে লোকজনকে গণজমায়েত এড়িয়ে ঘরে থাকতে নির্দেশনা দিচ্ছেন। এর মধ্যেও গত কয়েক দিনে চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১১৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। এরা সবাই এয়ার অ্যারাবিয়ার একটি ফ্লাইটে ২১ মার্চ মধ্যপ্রাচ্য থেকে দেশে আসেন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন মোট ৯৭৩ জন।

যদিও, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও সিএমপি পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে। প্রশাসনের সতর্কতায় করোনা আতঙ্কে নগরীর ৭০ লাখ মানুষের বেশিরভাগই আজ বাসায় বন্দি। খুব কম লোকজন বের হচ্ছেন। বিশেষ করে নগরীর সব হোটেল-মোটেল, পার্ক, বিয়ের কমিউনিটি সেন্টারগুলো বন্ধ করায় স্বস্তি রয়েছে কিছুটা। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাসা-বাড়ি থেকে লোকজন বের হচ্ছে না।

বলতে গেলে প্রশাসনের চাপে জনসমাগম একেবারে কমে গেছে। বাড়তি লোকজনকে জমায়েত হতে দেওয়া হচ্ছে না। নগরীতে বাস, সিএনজি ও অটোরিক্সাসহ কিছু যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে। তবে ওইসব যানবাহনের যাত্রী সংখ্যাও খুব কম দেখা গেছে।

চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি মিয়া জানিয়েছেন, একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও জাহাজ আউট গোয়িংয়ের আরেকটি বন্দর থাকায় করোনা ভাইরাস ঝুঁকিতে রয়েছে চট্টগ্রাম। তাই সরকারি নির্দেশনায় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জনসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো আলাদাভাবে করোনা ঝুঁকি মোকাবিলায় বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন। নগরীর সব পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল লকডাউন করা হয়েছে। দুইটি হোটেল করোনা চিকিৎসায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একই সঙ্গে জনসাধারণের চলাচলে বেশ কড়াকড়ি বাড়ানো হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নভেল করোনা ভাইরাস নিয়ে চট্টগ্রামের প্রশাসন খুব কঠোর নজরদারি করছে। জনগণকে আতঙ্কিত হবার কোনো কারণ নেই। সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নসহ সব ধরনের কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। মানুষ যেন নিয়ম মেনে বসবাস করেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ তথ্যে জানানো হয়েছে, বিশ্বজুড়ে করোনার বিস্তার বাড়ছে। এ পর্যন্ত ১৩ হাজার ৫৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মূলত ভাইরাসটি চীনের উহান শহর থেকে ছড়ালেও চীনকে ছাড়িয়ে সর্বোচ্চ প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে ইতালিতে।

ওডি/আরবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড