• রোববার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভালুকায় চিকিৎসকের অবহেলায় রাস্তায় সন্তান প্রসব 

  ভালুকা প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ

১৯ মার্চ ২০২০, ১৫:২৮
ময়মনসিংহ ভালুকা
সন্তান প্রসব (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় নার্সের ভুলে রাস্তায় সন্তান প্রসব করেছে রাজিয়া আক্তার (২২) নামে এক পোশাক শ্রমিক। 

বুধবার (১৮ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ভালুকা পৌরসভার ভালুকা বাসস্ট্যান্ড ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পশ্চিম পাশের ফুটওভার ব্রিজের নিচে এ ঘটনা ঘটে।  

প্রসূতি ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল উপজেলার আউলিয়া নগর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বালিপাড়া গ্রামের আশির উদ্দিনের ছেলে আব্দুল সামাদের স্ত্রী রাজিয়া আক্তার (২২)। বর্তমানে সে ভালুকা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মঞ্জিলা খানের ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। 

ওই প্রসূতির স্বজনদের অভিযোগ, হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সের অবহেলায় এই অমানবিক ঘটনা ঘটেছে। নার্স নিজেই প্রসূতিকে রেফার ছাড়াই বিদায় করে দেয়। এমনকি রাতের দিকে এক নার্স বলে রোগীকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে অথবা ক্লিনিকে নিয়ে যেতে হবে। 

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুধবার (১৮ মার্চ) বিকালের দিকে রাজিয়া আক্তারের প্রসব ব্যথা ওঠে। পরে রাত ৮টার দিকে বাড়ির লোকজন রাজিয়াকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত স্টাফ নার্স শামীমা আক্তার রাজিয়াকে দেখে বলে, তার এর আগে একটি সিজার করা হয়েছে। 

ভুক্তভোগী রাজিয়ার স্বামী আব্দুস সামাদ অভিযোগ করে বলেন, আমার স্ত্রীকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে ডাক্তার অমিত কুমার রায় ও নার্স শামীমা আক্তার বলেন, আল্ট্রাসনোগ্রাম করে নিয়ে আসেন। এরপর খোদেজা হালিম হসপিটাল অ্যান্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে আল্ট্রাসনোগ্রাম করে নিয়ে আসি আমি। পরে নার্স শামীমা মুঠোফোনে আমাকে বলে ওই হাসপাতালে সিজার করার জন্য ১২ থেকে ১৩ হাজার টাকা লাগবে।

আব্দুস সামাদ বলেন, আমি তো গরিব মানুষ, ভালুকায় একটি স্থানীয় ফ্যাক্টরিতে কাজ করি। আমি এত টাকা পাব কোথায়? 

পরে নার্সের কথা শুনে প্রসূতিকে ময়মনসিংহ নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পশ্চিম পাশের ফুটওভার ব্রিজের নিচে আসলে রাজিয়া সন্তান প্রসব করে। 

ক্রাউন ওয়্যারস প্রা. লিমিটেডের পোশাক কারখানার নারী শ্রমিকরা জানান, অফিস ছুটি হওয়ার পর বাস থেকে নেমে এসে দেখি ওই নারী প্রসবের ব্যথায় কাতরাচ্ছে। পরে আমরা একটি কাপড় দিয়ে ঘিরে রাখি এ সময় রাজিয়ার মায়ের হাতে সন্তান প্রসব করেন। 

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি জানাজানি হলে ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাইন উদ্দিনকে মুঠোফোনে জানানো হয়। তাৎক্ষণিক ভালুকা মডেল থানার এসআই আবু তালেব পুলিশের একটি দল নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সহযোগিতায় ভালুকা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই প্রসূতি ও নবজাতক সন্তানকে উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। এ সময় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক গেলে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। তবে মা ও নবজাতক সন্তান এখন সুস্থ আছেন। 

ভালুকা জলিল টাওয়ারের খোদেজা হালিম হসপিটাল অ্যান্ড ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের আল্ট্রাসনোগ্রামের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, রাজিয়ার বর্তমানে ৩৪ সপ্তাহ পাঁচ দিন চলছে। বাচ্চা হওয়ার সম্ভাব্য তারিখ আগামী ২৪ এপ্রিল। এই রিপোর্ট দিয়েছে ডাক্তার মো. এম রহমান। 

এ ব্যাপারে কর্তব্যরত স্টাফ নার্স শামীমা আক্তার বলেন, রোগীর এর আগে একটি অপারেশন হয়েছে। নরমালে ঝুঁকি হতো, তাই নেয়নি। তবে রোগীদের লোকজন রেফার্ডের কাগজ না নিয়ে চলে যায়। আমার একটু ভুল হয়েছে। 

ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক অমিত কুমার রায় জানান, ইমারজেন্সিতে রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিয়ে আসা পর রোগীকে ভর্তি করা হয়। ওই রোগীর আগে একটি সিজারে বাচ্চা হয়েছে, তা বলেনি। নার্সের কাছে সে স্বীকার করে আগে একটি সিজার হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সিজার গাইনি সার্জনের আন্ডারে করতে হয়, না হলে রোগীর লাইফের রিস্ক থেকে যায়। 

ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র অফিসার ইকবাল হাসান জানান, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে আমরা সংবাদ পাই। পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে মা ও শিশুকে উদ্ধার করে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। 

ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, এ ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতায় মা ও শিশুকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হয়। 

আরও পড়ুন : জামালপুরে হোম কোয়ারেন্টাইনে ৫১ জন, একজনকে জরিমানা 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সোহেলী শারমিন দৈনিক অধিকারকে জানান, হাসপাতালের বাইরে একটি বাচ্চা প্রসব করেছে এ খবর আমার কাছে এসেছে। এ বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছি। কারও অবহেলা থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এখন মা ও নবজাতক ভালোই আছেন। 

ওডি/জেএস

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড