• সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শহীদ বেদিতে জুতা পায়ে নাচ, ক্ষুব্ধ সচেতন মহল

  জেলা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০১:৫১
জুতা পায়ে শহীদ মিনারে নাচ
শহীদ মিনারের বেদিতে জুতা পায়ে নাচ ও ভাইরাল হওয়া কিছু মন্তব্যের স্ক্রিনশট (ছবি : সম্পাদিত)

ঝিনাইদহে শহীদ মিনারের বেদিতে হিন্দি গানের সঙ্গে তরুণ-তরুণীর জুতা পায়ে নাচের দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত শহীদ মিনারে এমন কাজ চরম অবমাননার শামিল বলছেন ক্ষুব্ধ সচেতন মহল। 

শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাতে  ঝিনাইদহ থিয়েটার সাংস্কৃতিক সংগঠনের পরিবেশিত ‘ক্ষেপা পাগলার পেঁচাল’ নাটকের দৃশ্যে এমন চিত্রের দেখা মেলে।  

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে রাতে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা ও নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে চলছিল ঝিনেদা থিয়েটারের পরিবেশনায় নাটক। এ সময় হঠাৎ করেই জুতা পায়ে পাঞ্জাবী, টুপি পরে হিন্দি গানের সঙ্গে নাচ শুরু করে তরুণ-তরুণীরা। সে সময় অনেকেই মোবাইল ফোনে দৃশ্যটি ধারণ করলেও তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি প্রশাসনকে।

এ বিষয়ে জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি শান্ত জোয়ারদার জানান, যে শহীদদের রক্তের বিনিময়ে আমরা মাতৃভাষা বাংলা পেয়েছি, বাংলায় কথা বলতে পারছি তাদের চরম অবমাননা করা হলো। আমরা সকলে মিলে যে প্রভাতফেরি করলাম, পুষ্পমাল্য অর্পণ করলাম তার আর কোনো অর্থ থাকল না। আমাদের ভাষা শহীদদের অপমান করা হলো, বিকৃত করা হলো সংস্কৃতিকে।

তিনি আরও জানান, একটা স্বাধীন দেশে এমন বিকৃত আচরণ কখনোই মেনে নেওয়া যায় না। প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই, অতিদ্রুতই যেন এই সাংস্কৃতিক সংগঠনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এর ব্যত্যয় হলে ঝিনাইদহসহ সারা দেশব্যাপী চরম আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক সাংস্কৃতিক কর্মী জানান, ফেসবুকে যখন দেখলাম জুতা পায়ে শহীদ বেদিতে নাচ-গান হচ্ছে তখন চোখে জল আসলো। যারা মাতৃভাষার জন্য প্রাণ বিসর্জন দিল তাদের স্মরণে নির্মিত শহীদ বেদিতে এমন চিত্র কখনোই কাম্য নয়। 

‌‘ক্ষেপা পাগলার পেঁচাল’ নামের এই নাটকের পরিচালক ও ঝিনেদা থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বলেন, ‘আমাদের নাটকের মূল বিষয় ছিল বিভিন্ন সময় শহীদ মিনারে পার্টি, জন্মদিন, গরু-ছাগল চরে বেড়ানো এসব নানা বিষয় তুলে ধরা, যাতে শহীদ মিনারের কোনো অবমাননা না হয়। কিন্তু দেখা গেছে চলতি ফেব্রুয়ারি মাসে দুটি সংগঠন এই শহীদ মিনারে হিন্দি গানের সঙ্গে নাচ ও অন্যান্য অনুষ্ঠান করেছে। এর মধ্যে ‌‘বিউটিফুল ঝিনাইদহ’ নামের ফেসবুক পেজের একজন অন্যতম উপদেষ্টার জন্মদিনের পার্টি করা হয়েছে শহীদ মিনারের বেদিতে। নাটকের চরিত্রটি তাদের বিরোধী হওয়ায় এমন ষড়যন্ত্র করেছে তারা। নাটকের সম্পূর্ণ ভিডিও না দিয়ে আংশিক প্রচার করেছে তারা। এ বিষয়ে আমরা সম্মিলিতভাবে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি আদালতে এই ফেসবুকে পেজের অ্যাডমিনসহ অন্যদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা করব।’

তবে এ ব্যাপারে জেলা কালচারাল অফিসার জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ঝিনেদা থিয়েটারের একটা নাটক চলছিল। তাৎক্ষণিক নাটকের দৃশ্যে জুতা পায়ের বিষয়টি আমার চোখে পড়েনি। তবে ফেসবুকে দেখলাম। আমি কথা বলব নাটকের পরিচালক ও সংগঠনের সঙ্গে- কেন এমনটি হলো। নাটকের চরিত্রে হিন্দি গানে সমস্যা নেই কিন্তু জুতা পায়ে প্রবেশটা ঠিক হয়নি।’

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ বলেন, ‘শহীদ বেদিতে জুতা পায়ে প্রবেশ সঠিক হয়নি। সংগঠনের সকলকে নিষেধ করব যেন এমনটি আর না হয়।’ 

‘বিউটিফুল ঝিনাইদহ’ ফেসবুক পেজে ভাইরাল হওয়া ভিডিও থেকে কয়েকটি কমেন্ট তুলে ধরা হলো-

বাবু কাজল নামে একজন লিখেছেন, ২১শে ফেব্রুয়ারিতে কেন এই গান, নাচ রাখতে হবে? কী এমন নাটকের দৃশ্য ছিল যার দ্বারা সমগ্র জাতিকে অপমান করল। আমাদের রুচি নেই, যে বোধটুকু ছিল সেটাও কিছু ছাগলের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। 

ইমন কুমার লিখেছেন, বাংলার ছেলেদের কাছে এমনটা আশা করা যায় না, শহীদ মিনারে এসব নাচ, তাও আবার জুতা পরে, ভাবতে অবাক লাগছে, রাজাকারের ছেলে মেয়ে হলে এটা করতে পারে।

আরও পড়ুন : ইবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, গুরুতর আহত ১

অন্তর হোসেন রিজু লিখেছেন, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনেক অনুষ্ঠান হয়েছে, কিন্তু ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে এগুলো কাম্য নয়। 

শামীম আহমেদ ভিডিওতে কমেন্ট করেছেন, অনুষ্ঠানের সময় ছিলাম, নিজের চোখেই দেখছি, কিন্তু কিছু বলতে পারিনি।

এমডি রাজীব বিশ্বাস কমেন্ট করেছেন, বাংলা ভাষার জন্য যারা জীবন দিল, আজ তাদেরই মনে করছে হিন্দি গান বাজিয়ে। আমার মনে হয় তারা ভাষার জন্য জীবন দিয়ে ভুল করেছিল।

ওডি/জেআই 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড