• শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মাগুরায় নদী দখল করে গড়ে উঠছে পরিবহন স্ট্যান্ড

  হেলাল হোসেন, মাগুরা

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১:১৯
মাগুরা
বালু দিয়ে ভরাট করে ও বাধ নির্মাণ করে গড়ে তোলা হচ্ছে পরিবহন স্ট্যান্ড

কর্তৃপক্ষ বলছে জনসাধারণের সুবিধার জন্য করা হচ্ছে, পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে এ বিষয়ে তারা অবগত নয়। মাগুরা জেলা সদর থেকে শ্রীপুর উপজেলা সদরে যেতে এক মাত্র প্রবেশ দার হচ্ছে কুমার নদের উপরের স্থাপিত ব্রিজটি। কিন্তু এ ব্রিজ সংলগ্ন সড়কের উপরই গড়ে উঠেছে বাস ও টেম্পু স্ট্যান্ড। এর ফলে সেখানে প্রায়ই যানজট লেগেই থাকে যার ফলে সে খানকার জনসাধারণের চলাচলে অসুবিধার সৃষ্টি হয়। 

মাগুরা শ্রীপুর উপজেলা প্রশাসন এবং ইউনিয়ন কাউন্সিলের উদ্যোগে ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গের সমন্বয়ে কুমার নদীর ভিতর থেকে ড্রেজিং মেশিন দিয়ে বালু দিয়ে ভরাট করে ও মাটি দিয়ে বাধ নির্মাণ করে সেখানে গড়ে তোলা হচ্ছে পরিবহন স্ট্যান্ড। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে নদী ভরাট কাজের অর্থ যোগান দিচ্ছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে এলাকাবাসীর সুবিধার জন্য এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি নদী দখল করে নয় অন্য কোথাও করা হোক। এদিকে কুমার নদে ড্রেজিং করে মাটি ভরাটের কাজ চলছে গত দু’মাস ধরে। আর মাটি ধরে রাখতে নদীর ভাঙ্গন থেকে ব্রিজ রক্ষার জন্য পাড়ে বসানো ব্লক উঠানো হচ্ছে। এর ফলে একদিকে ব্রিজটি যেমন অরক্ষিত হয়ে পড়ছে অন্য দিকে নদীর পাড় ভেঙ্গে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই তো এলাকাবাসীর দাবি এমন উন্নয়ন কাজ নদীর জায়গা দখল না করে অন্য কোথাও করতে হবে।

এদিকে পরিবেশবিদেরা বলছে যেখানে সরকার নদী বাঁচাতে নদী খনন করছে সেখানে নদীর জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করে কোন ভাবেই পরিবেশ রক্ষা করা সম্ভব নয়।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সরোয়ার জাহান সুজন এমন কাজে বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, আমি আপনাদের কাছে প্রথম শুনলাম নদী ভরাটের কথা। আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।

আরও পড়ুন ঃ খালেদার মুক্তির দাবিতে মাগুরায় বিএনপির পথসভা

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াছিন কবির জানান, স্থানীয় জনগণের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে এবং সবার সাথে আলোচনা করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মাগুরা জেলা প্রশাসক আশরাফুল আলম এর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জনকল্যাণে এমন কাজের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এর ফলে মরা নদীর কোন ক্ষতি হবে না।

উল্লেখ্য জেলায় জেলায় মোট ৩০৬ কিলোমিটার দীর্ঘ নদী রয়েছে। তার মধ্য নবগঙ্গা, কুমার, ফটকি, বেগপতি উল্লেখ্য যোগ্য নদী। ইতিমধ্যে নবগঙ্গা নদী ৪৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১১ কিলোমিটার খনন সম্পন্ন হয়েছে। মাগুরা জেলার মোট জনসংখ্যা ১০ লক্ষের অধিক। এর মধ্যে শ্রীপুর উপজেলার মোট জনসংখ্যা ১,৮১,৪৬১ জন।

ওডি/আরবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড