• রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সমতলের চা বাগানে স্বপ্নের উঁকি

  এম মোবারক হোসাইন, পঞ্চগড়

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:৩১
নতুন কুঁড়ি
চা বাগানে নতুন কুঁড়ি (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ঋতুরাজ বসন্তের আগমনী বার্তা জানান দিচ্ছে প্রকৃতিতে। রোদ ও বাতাসের দোলাচলে গাছের পাতা পড়ছে। মৌসুমের এ সময়ই সমতলের চা বাগানে প্রুনিং বা কলমের কাজ চলে। ফলে বাগানে বাগানে উঁকি দিচ্ছে নতুন কুঁড়ি। 

দেশের চায়ের তৃতীয় অঞ্চল হিসেবে পরিচিত পঞ্চগড়। পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার সমতল ভূমির চা বাগানের সেকশন তালিকাভুক্ত করা চা গাছগুলোর মাথা প্রুনিং করা হয়। 

চা গাছের বৃদ্ধি ও সুস্থতা এবং অধিক উৎপাদনের লক্ষ্যে প্রতিবছর বাগানে বাগানে প্রুনিং কার্যক্রম চলে আসছে। বছরের শেষ ও শুরুর দুই মাস প্রুনিং কার্যক্রম চলায় সে সময় চা কারখানা বন্ধ থাকে। 

ইতোমধ্যে চা বাগানে প্রুনিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে। এখন চলছে আগাছা ও আবর্জনা পরিষ্কারের কাজ।

অভিজ্ঞ টি প্ল্যানটার এবং চা বাগানের ম্যানেজার মিজান হোসেন দৈনিক অধিকারকে বলেন, আমাদের চা গাছগুলোতে প্রুনিং করা শেষ। এখন নতুন কুঁড়ির জন্য অপেক্ষা করছি। প্রুনিংয়ের পর চা বাগানগুলোতে গাছের গোড়া পরিষ্কার, চা গাছের মধ্যে বেড়ে ওঠা আগাছা উপড়ে ফেলে দেওয়াসহ প্রভৃতি কাজ চলমান রয়েছে। 

চা গাছে প্রুনিং করার পর গাছের গোড়ার মধ্যে উলু পোকার (উঁই পোকা) বাসা থাকে। চা গাছের জন্য উলু পোকা অত্যন্ত ক্ষতিকর। এই পোকা চা গাছের গোড়া বা শরীরের অংশ খেয়ে ফেলে। এতে চা গাছগুলো মরে যায়। তাই প্রুনিংয়ের পর আমরা সমতল জায়গায় তা পরিষ্কার করে থাকি বলে জানান পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার মাঝিপাড়ার চা চাষি মেহেদী হাসান মামুন। 

তিনি আরও বলেন, আগাছা পরিষ্কারের পাশাপাশি চা গাছে কিছু পরগাছা জন্ম নেয়। তখন ওগুলোকে পরিষ্কার করা হয়। তারপর শুষ্ক মৌসুমে যাতে আগুন না লাগে তার জন্য আমরা চা বাগান পরিষ্কার করে রাখি। এগুলো আমরা করি সব প্রাপ্তবয়স্ক চা গাছে। 

আরও পড়ুন : প্রতিপক্ষের আগুনে পুড়ল পান চাষির স্বপ্ন

পঞ্চগড় তেঁতুলিয়ার চা চাষি নুরে আলম সিদ্দিকী দৈনিক অধিকারকে বলেন, ইয়াং-টিতে (কচি চারা) এই সময় মাটি আচ্ছাদন করে কচুরিপানা দিয়ে মাটি ঢেকে দেওয়া হয় যাতে করে মাটির পানি বাষ্প না হয়ে যায়। এটাকে চায়ের ভাষায় বলে ‘মার্চিং’। এ ছাড়া চা বাগানের ক্লোন নার্সারিতে চলে মাটি দিয়ে প্লাস্টিক ব্যাগ ভরার কাজ। 

প্রুনিংয়ের পর চা বাগানে বৃষ্টিপাত অনেকটা আশীর্বাদ হয়ে আসে। বৃষ্টির পরশ পেলেই সেই কাটা অংশ থেকে নতুন চারা গজাতে শুরু করে বলে জানান অভিজ্ঞ কাজী অ্যান্ড কাজী চা বাগানের সিনিয়র ম্যানেজার কবীর আকন্দ। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড