• শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ছাত্রীদের অশ্লীল ভিডিও দেখানোর দায়ে প্রধান শিক্ষক আটক

  সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:৫৩
আটক
ছাত্রীদের অশ্লীল ভিডিও দেখানোর দায়ে আটক প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

সুনামগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চারজন ছাত্রীকে জোরপূর্বক অশ্লীল ভিডিও দেখানোর দায়ে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিনকে (৪৬) আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকালে জেলার মাইজবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

পরে ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা প্রথমে বিদ্যালয় ঘেরাও করে ওই শিক্ষককে মারধরের চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত ওই প্রধান শিক্ষককে নিজেদের হেফাজতে নেয়।

ভুক্তভোগী ছাত্রীদের অভিভাবকরা জানান, মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে অষ্টম শ্রেণির চারজন ছাত্রীকে বিদ্যালয়ের ছাদে ডেকে নিয়ে যান প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন। পরে ছাত্রীদের জোরপূর্বক নিজের মুঠোফোনে থাকা অশ্লীল ভিডিও ক্লিপ দেখান তিনি। এ সময় ছাত্রীরা সেটি দেখতে না চাইলে তাদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করা হয়। একই সঙ্গে তাদের বিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারসহ পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন গিয়াস উদ্দিন।

পরে কৌশলে দুইজন ছাত্রী সেখান থেকে পালিয়ে আসলে বাকি দুইজনকে ছাদে আটক রাখা হয়। একপর্যায়ে অভিভাবকরা খবর পেয়ে এলাকার লোকজনকে সঙ্গে নিয়ে ওই বিদ্যালয় ঘেরাও করেন। এরপর প্রধান শিক্ষকের মুঠোফোন পেয়ে পুলিশ সেখানে এসে তাকে নিজেদের হেফাজতে নেয়।

ভুক্তভোগী এক ছাত্রীর অভিভাবক বলেন, ‘ওই শিক্ষক ছাত্রীদের অশ্লীল ভিডিও দেখতে বাধ্য করেছেন। কাউকে এ নিয়ে কোনো কিছু বললে স্কুল থেকে বের করে দেওয়ারও হুমকি দেন তিনি।’

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক ও লজ্জার। ওই এলাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে ফোনে তাকে বিষয়টি জানালে তিনি বিদ্যালয়টি পরিদর্শনে যান।

আরও পড়ুন : গোপালগঞ্জে সন্তানদের রেখে মায়ের নদীতে ঝাঁপ

সুনামগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান দৈনিক অধিকারকে বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ওই বিদ্যালয়ের গিয়ে দেখে- কয়েকশ লোক বিদ্যালয় ঘেরাও করে রেখেছে। পরে প্রধান শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। ওই শিক্ষক বর্তমানে পুলিশি হেফাজতে আছেন’।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি বলেও জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

ওডি/আইএইচএন

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড