• শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের বাবার মৃত্যুর সংবাদ গুজব

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:২১
বরকত উল্লাহ
আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ছাত্রলীগের গণপিটুনিতে নিহত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের বাবা মারা গেছেন বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়েছে। তবে এ খবর ভুয়া বলে জানিয়েছেন আবরারের পরিবার। 

এ ব্যাপারে আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বলেন, এটা মিথ্যা খবর। কোনো কুচক্রী মহল এই ধরনের মিথ্যা ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচার করছে। 

তিনি বলেন, আবরারের মা একটু অসুস্থ থাকায় ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসা নিয়ে বর্তমানে ভালো আছে। এছাড়া আবরারের ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজসহ পরিবারের অন্য সদস্যরাও ভালো আছেন। 

আবরারের বাবা জানান, কয়েকদিন আগে অপরিচিত একটা নম্বর থেকে আমার মুঠোফোনে কল আসে। জয়পুরহাট থেকে নিজেকে সাত্তার পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আপনার ছেলে তো চলে গেছে, আর তো ফিরে আসবে না। কিন্তু এতগুলো ছেলের জীবনও তো নষ্ট হয়ে যাবে। আল্লাহ বলেছেন, হত্যার বদলে হত্যা কিন্তু মাফ করে দেওয়া সর্বোত্তম। আসামিদের মধ্যে অনেকের বাড়ির লোকই অসুস্থ। সবার বাবা মারা গেছেন। আমরা কয়েকজন আসামিদের পক্ষ থেকে আপনাদের সঙ্গে দেখা করতে চাই।’ 

এ কথা শোনার সঙ্গে সঙ্গে বরকত উল্লাহ জবাব দেন, এরপর ভুলেও আর যেন কল না দেওয়া হয় বলেই ফোন কেটে দেন। 

আরও পড়ুন : কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন।

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড