• বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চাঁদা না দেওয়ায় শিক্ষকের ঘরে সন্ত্রাসীর আগুন

  লামা প্রতিনিধি, বান্দরবান

০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২০:২৯
আগুন
আগুনে পুড়ে যাওয়া বসতঘর (ছবি : দৈনিক অধিকার)

বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে চাঁদা না দেওয়ায় বান্দরবানের লামা উপজেলায় মো. খালেকুজ্জামান নামে এক প্রধান শিক্ষকের বসতঘর পুড়িয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। 

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত গভীর রাত ২টার দিকে উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের হাফেজ পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। 

ক্ষতিগ্রস্ত খালেকুজ্জামান হাফেজ পাড়ার বাসিন্দা আবদুল লতিফের ছেলে ও মাতামুহুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

স্থানীয়রা জানান, আগুনে ক্ষতির পরিমাণ ১৫ লাখ টাকা হবে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনার পর হাফেজ পাড়া ও মাস্টার পাড়াসহ তিন গ্রামের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। রাত জেগে বাড়িঘর পাহারা দিচ্ছে এলাকাবাসী। 

এ ঘটনার খবর পেয়ে রবিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা জামাল, পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিংপ্রু মার্মা, লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অপ্পেলা রাজু নাহা প্রমুখ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সূত্র জানায়, গত ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে সাড়ে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে শিক্ষক খালেকুজ্জামানের বসতঘরের দরজায় একটি উড়ো চিঠি রেখে যায় সন্ত্রাসীরা। এতে দাবিকৃত চাঁদা না দিলে পেট্রোল দিয়ে ঘরবাড়ি আগুনে পুড়িয়ে দেওয়াসহ অন্যান্য ক্ষতি করার হুমকি, পুলিশকে জানালে আরও বেশি ক্ষতি হবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। 

এ দিকে, বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে চাঁদার টাকা না দেওয়ায় সন্ত্রাসীরা শনিবার দিবাগত ২টার দিকে বসতঘরে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এতে মুহূর্তের মধ্যে বসতঘরটি সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। 

ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষক খালেকুজ্জামান বলেন, সন্ত্রাসীদের উড়ো চিঠি পাওয়ার পর থানায় অবগত করেও বসতঘরটি রক্ষা করতে পারলাম না। দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ার কারণে ঘরের কোনো মালামাল রক্ষা করা যায়নি। এতে প্রায় ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. শাহ আলম, মো. শাহজাহান ও চ থোয়াই মার্মা জানান, গত এক মাসে গভীর রাতে তিনটি গ্রামের ১২টি ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগসহ দুইটি উড়ো চিঠির মাধ্যমে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে সন্ত্রাসীরা। বর্তমানে সন্ত্রাসীদের তাণ্ডব ও অত্যাচারে নিদ্রাহীন রাত কাটাচ্ছেন কয়েক গ্রামের মানুষ। একই পাড়ার বাসিন্দা উহ্লাচিং মার্মার ছেলে চনুমং মার্মার কাছেও উড়ো চিঠি দিয়ে দেড় লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে বলে জানান তারা। 

রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা জানায়, স্থানীয় মাস্টারপাড়ার বাসিন্দা পাইংশৈ প্রু মার্মার ছেলে ছিং ছিং মার্মার নেতৃত্বে এসব সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য, হেডম্যান, কারবারিদের নিয়ে বৈঠক করে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। 

আরও পড়ুন : আপেল কুলে ভাগ্য বদলেছে শরিফুলের

সন্ত্রাসীদের দেয়া আগুনে বসতঘর ছাই হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. আমিনুল হক। তিনি বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি ওই এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।  

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড