• সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন বগুড়ার কৃষকরা

  আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া

০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৩১
কৃষকেরা জমিতে পলেথিন দিয়ে কুঁড়ে ঘর তৈরি করছেন
কৃষকেরা জমিতে পলিথিন দিয়ে কুঁড়ে ঘর তৈরি করছেন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

চলতি বছর পেঁয়াজের মূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় বগুড়ার কৃষকদের চোখে ঘুম নেই। তারা অধীর অপেক্ষায় রয়েছেন জমিতে উৎপাদিত পেঁয়াজ কবে বাজারে বিক্রি করে নগদ অর্থ ঘরে তুলবেন। সেই সঙ্গে চোরের হাত থেকে এই সময়ের মহামূল্যবান পেঁয়াজ রক্ষার জন্য রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন পেঁয়াজ ক্ষেত।

জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলায় মাঠ থেকে একের পর এক পেঁয়াজ চুরির ঘটনা ঘটছে। তাই পেঁয়াজ চুরি ঠেকাতে ওই উপজেলার কৃষকেরা তাদের পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিচ্ছেন। বিশেষ করে যমুনা নদীর চরাঞ্চলের কৃষকেরা জমিতে পলিথিন দিয়ে কুঁড়ে ঘর তৈরি করে সেখানে রাত্রিযাপন করছেন।

বগুড়ার সোনানতলা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার একটি পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নে প্রায় ২৫০ হেক্টর জমিতে কৃষক পেঁয়াজ চাষ করেছেন। প্রতিবছরের মতো এবারও পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মাসুদ আহমেদ জানান, কৃষক দুই পদ্ধতিতে পেঁয়াজ চাষ করে থাকে। এর একটি হচ্ছে বীজ বপনের মাধ্যমে অপরটি চারা রোপণের মাধ্যমে। বীজ বপন থেকে আড়াই-তিন মাসের মধ্যে কৃষক পেঁয়াজ উত্তোলন করা যায়। আর চারা রোপণের মাধ্যমে দেড় থেকে দুই মাসের মধ্যে পেঁয়াজ উত্তোলন করতে পারেন কৃষকরা।

গতকাল সরজমিনে উপজেলার সরলিয়া, খাবুলিয়া, মহব্বতেরপাড়া, আউচারপাড়া, ভিকনেরপাড়া, জন্তিয়ারপাড়া, খাটিয়ামারী, শিমুলতাইড়, দিঘলকান্দী, নওদাবগা, কর্পূর, মূলবাড়ী, ফাজিলপুর, মহিচরণ, বালুয়াহাট, মধুপুর, হরিখালী, পাকুল্লা, চারালকান্দি এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিটি এলাকায় কৃষক জমি থেকে পেঁয়াজ চুরি রোধে পলিথিন দিয়ে ঘর বেঁধে পেঁয়াজের জমিতে রাত জেগে পেঁয়াজ পাহারা দিচ্ছেন।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার নওদাবগা এলাকার সোনাউল্লাহ জানান, এবার তিনি দুই বিঘা জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছেন। ইতোমধ্যেই ১০ শতক জমির পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি করে তিনি ৬০ হাজার টাকা উপার্জন করেছেন।

খাবুলিয়া এলাকার শামছুল হক জানান, এবার তিনি পাঁচ বিঘা জমিতে পেঁয়াজ রোপণ করেছেন। ইতোমধ্যেই তিনি দেড় বিঘা জমির পেঁয়াজ বিক্রি করে প্রায় লক্ষাধিক টাকা আয় করেছেন।

এ দিকে খাবুলিয়া, জন্তিয়ারপাড়া ও আউচারপাড়া চরের ছয়জন কৃষকের জমি থেকে গত বুধবার দিবাগত রাতে পেঁয়াজ চুরির ঘটনা ঘটে।

ওই উপজেলার কৃষকেরা জানান, প্রতি রাতেই কোনো না কোনো এলাকায় পেঁয়াজ চুরির ঘটনা ঘটছে। সম্প্রতি উপজেলার মধ্যদিঘলকান্দী এলাকার এক কৃষকের দুই শতক জমির পেঁয়াজ চুরি করে নিয়ে গেছে সংঘবদ্ধ চোরের দল।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার বিভিন্ন হাটে বাজারে পুরাতন পেঁয়াজ আড়াইশ টাকা ও নতুন পেঁয়াজ দেড় থেকে ১৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাজার মনিটরিং না থাকায় এক শ্রেণির মুনাফালোভী পেঁয়াজ ব্যবসায়ী পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে ফায়দা লুটছে। উল্লেখ্য, চলতি বছর পেঁয়াজের মূল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধির কারণে জমি থেকে পেঁয়াজ চুরির ঘটনা ঘটছে বলে সচেতন মহল জানান।

ওডি/ এফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড