• সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চুর দাফন সম্পন্ন

  কুলাউড়া প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার

০৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৭:০৪
ভাষা সৈনিক
ভাষা সৈনিক রওশন আরা বাচ্চুর মরদেহ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনে মেয়েদের মিছিলে নেতৃত্বদানকারী রওশন আরা বাচ্চুর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। 

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় সর্বস্তরের জনগণের অংশগ্রহণ ও শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়। 

মরহুমার লাশ ঢাকা থেকে কুলাউড়া উপজেলার উছলাপাড়াস্থ বাসভবনে এসে পৌঁছালে অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী সেখানে ভিড় করেন এবং তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।
 
বুধবার বেলা ১১টায় তার নিজ বাড়ির সামনে কুলাউড়া এনসি স্কুল মাঠে জানাজার পূর্বে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমদ, কুলাউড়া ইউএনও এটিএম ফরহাদ চৌধুরী, পুলিশের কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদেক কাওছার দস্তগীর, কুলাউড়া থানার ওসি মো. ইয়ারদৌস হাসানসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ মরহুমার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে জানাজার নামাজ শেষে তাকে দাফন করা হয়। 

জানাজার পূর্বে কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম শামীমের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন- জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, পুলিশ সুপার ফারুক আহমদ, ভাষা রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. এম এ মুক্তাদির, সাবেক এমপি আব্দুল মতিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী, কুলাউড়া উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাওলানা ফজলুল হক খান শাহেদ, পৌর মেয়র শফি আলম ইউনুছ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম রেনু প্রমুখ। পরে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমার লাশ দাফন করা হয়। 

উল্লেখ্য, রওশন আরা বাচ্চু (৮৮) মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) ভোর রাত ৩টার সময় রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ হয়ে অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি দুই মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। রওশন আরা বাচ্চুর মৃত্যুর পর তাঁর লাশ বিকাল সাড়ে ৩টায় বাংলা একাডেমীতে নিয়ে যাওয়া হয়। 

পরে বাদ আছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদে মরহুমার প্রথম নামাজে জানাজা ও রাতে বাদ এশা মিরপুর বায়তুল আমান জামে মসজিদে দ্বিতীয় জানাজা শেষে রাতে রওশন আরা বাচ্চুর লাশ নিজ এলাকা কুলাউড়া উপজেলার উছলাপাড়া গ্রামে নিয়ে আসা হয়। আসাম প্রদেশের হাই কমিশনার খান বাহাদুর আলী আমজদ সাহেবের নাতনী, কুলাউড়া উপজেলার সাবেক সাব রেজিস্টার আসব আলী খান এর বড় মেয়ে রওশন আরা বাচ্চু ১৯৩২ সালের ১৭ ডিসেম্বর কুলাউড়া উপজেলার উছলাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। 

বাল্যকালের শিক্ষা জীবন তার নিজ গ্রাম উপজেলায় শেষ করে পরবর্তীতে পিরোজপুর গার্লস স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, বরিশালের ব্রজমোহন কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ১৯৫৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে অনার্স ও পরে ইতিহাসে এমএ সম্পন্ন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দিনগুলোতেই রওশন আরা গণতান্ত্রিক প্রোগ্রেসিভ ফ্রন্টে যোগ দিয়ে ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ওই সময়ে তিনি সলিমুল্লাহ মুসলিম হল এবং উইম্যান স্টুডেন্টস রেসিডেন্সের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার স্বামী মরহুম এস এ ওয়াহেদ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের ডাইরেক্টর ছিলেন।  

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড