• রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রংপুরে মহাসড়কের পাশ থেকে নবজাতক উদ্ধার

  রংপুর প্রতিনিধি

০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:০৪
হাজিরহাট থানা হেফাজতে নবজাতক
হাজিরহাট থানা হেফাজতে নবজাতক (ছবি : দৈনিক অধিকার)

রংপুর নগরীর হাজীরহাট থানা এলাকার মুছিরমোড় হজ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের পাশে কে বা কারা এক নবজাতক ছেলে সন্তানকে ফেলে গেছে। 

রবিবার (১ ডিসেম্বর) এই নবজাতক শিশুটিকে মহাসড়কের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এক থেকে দুই দিন বয়সী নবজাতককে স্থানীয় এক গৃহবধূ উদ্ধার করে তার শ্বশুরকে জানান। পরে তাকে হাজিরহাট থানায় হস্তান্তর করা হয়। নবজাতককে থানায় নেওয়া হলে অনেকেই দেখার জন্য থানায় ভিড় জমায়।

শিশুটির জন্মই কী আজন্ম পাপ, কোন পাষণ্ড এমন কাজ করলো? রংপুরে এমন হাজারো প্রশ্নের উত্তর খোঁজা হচ্ছে একটি নবজাতককে ঘিরে। ফুটফুটে নবজাতক কি অপরাধ করেছিল এই পৃথিবীতে জন্ম নিয়ে? এমন কথাগুলো বলছিলেন দেখতে আসা উৎসুক জনতা।

এ দিকে, অনেকেই শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন। পরে নবজাতককে রমেক হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ হলে তাকে বিকালে রংপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ পাঠানো হয়।

সন্ধ্যায় আদালতের বিচারক জাহাঙ্গীর আলম নবজাতককে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর নির্দেশ দেন। সেই সঙ্গে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হাজির হাট থানার ওসি, জেলা শিশুকল্যাণ বোর্ডের সভাপতি ও সমাজ সেবা অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেওয়া হয়। 

নবজাতকটিকে দত্তক চেয়ে আদালতে আবেদন করেন তারাগঞ্জ মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও কুর্শা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মো. কামরুজ্জামান। আবেদনের শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ আগামী ১০ ডিসেম্বর ধার্য্য করেন আদালত।

আদালত চত্বরে কামরুজ্জামান বলেন, আমার ১৭ বছরেরর বিবাহিত জীবন। আমার স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের কোনো সন্তান নেই। বহু চিকিৎসা করিয়েছি। কিন্তু সন্তান হয়নি। রাস্তার পাশে পাওয়া নবজাতককে দত্তক চেয়ে আদালতে আবেদন করেছি। প্রয়োজনে আমি আমার স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি লিখে দিতে রাজি আছি। আদালত আমার দায়িত্বে নবজাতককে দিলে আমি অন্য আর দশজন বাবার মতোই এই সন্তানকে মানুষ করব।

হাজিরহাট থানার ওসি জানান, নবজাতকের বয়স আনুমানিতক এক থেকে দুইদিন হবে। তাকে কেন রাস্তার পাশে এভাবে ফেলে রাখা হল এ বিষয়টি পুলিশ গুরুত্ব সহকারে দেখছে। তদন্ত করা হচ্ছে কেন এই ফুটফুটে শিশুটিকে অমানবিকভাবে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হলো।  এ বিষয়ে একটি জিডি করা হয়েছে। 

ওডি/ এফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড