• বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বাগেরহাটে বুলবুলের তাণ্ডবে ৫০ হাজার বাড়ি-ঘর তছনছ, নিহত ২

  বাগেরহাট প্রতিনিধি

১০ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৫৫
বুলবুলের তাণ্ডব
বুলবুলের তাণ্ডবে সড়কের ওপর গাছ ভেঙে পড়ে ( ছবি : দৈনিক অধিকার )

বাগেরহাটে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার ঘর-বাড়ি। ভেসে গেছে ৭ হাজার মাছের ঘের। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে জেলার উপকূলীয় এলাকার কয়েক হাজার মানুষ। এছাড়া ভেঙে গেছে লক্ষাধিক গাছ। এ অবস্থায় জনজীবনে বিপর্যয় নেমে এসেছে। 

রবিবার (১০ নভেম্বর) ভোর রাত থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বাগেরহাটে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। 

বাগেরহাট জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বাগেরহাটে দুইজন নিহত হয়েছে। ঘূর্নিঝড়ে জেলার ৯টি উপজেলা ও ৩টি পৌরসভার ৪৪ হাজার ৫৬৩টি ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫ হাজার ৭৭৫টি আংশিক এবং ৮ হাজার ৭৮৮টি ঘর সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নষ্ট হয়েছে ৩৫ হাজার ৫২৯ হেক্টর ফসলি জমি এবং ৭ হাজার ২৩৪টি মাছের ঘের। ভেঙে পড়েছে অর্ধ-শতাধিক বিদ্যুতের খুটি।

শনিবার মধ্যরাত থেকে এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎবিহীণ রয়েছে বাগেরহাট শহরের বিভিন্ন এলাকা। এছাড়া ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে নিহত হয়েছেন, ফকিরহাট উপজেলার মাসুম শেখের স্ত্রী হিরা বেগম এবং রামপাল উপজেলার বাবুল শেখের মেয়ে সামিয়া খাতুন। বুলবুলের আঘাতে সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকার বিপুল পরিমাণ গাছ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছে একাধিক পরিবেশবাদী সংগঠন।

বাগেরহাট পৌর এলাকার সোনাতলার বাসিন্দা মোল্লা মাসুদুল হক বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে আমার ঘরের টিনের ওপর একটি গাছ উপড়ে পড়েছে। এতে আমার ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হাটু সমান পানিতে বাড়ি-ঘর বন্দি। এমন অবস্থায় রান্নার কাজ বন্ধ রয়েছে। 

পৌরসভার খারদ্বার এলাকার তাসলিমা বেগম জানান, ঝড়ের তাণ্ডবে আমাদের বাড়ির ফলজ-বনজসহ ৫টি গাছ ভেঙে গেছে। এর মধ্যে আমাদের ভাড়াটিয়াদের দুটি ঘরে গাছ পড়ে পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে। হাটু সমান পানিতে আমরা এখনো বন্দি অবস্থায় আছি।

কচুয়া উপজেলার সোহান শেখ জানান, বাড়িতে ফলজ-বনজসহ প্রায় ২০টি বিভিন্ন প্রকার গাছ উপড়ে পড়েছে। এতে আমার প্রায় ৫ লক্ষধিক টাকার ক্ষতি হয়।  

বাগেরহাট কৃষি অধিদপ্তরের উপপরিচালক দীপক কুমার রায় জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে জেলায় ৩৫ হাজার ৫২৯ হেক্টর ফসলি জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৩১ হাজার ৮০৩ হেক্টর আমন, ২ হাজার ৩৯৫ হেক্টর সবজি, ৫৪০ হেক্টর পান, ৫৭০ হেক্টর খেসারি, ৭০ হেক্টর কলা, ৯৫ হেক্টর আঁখ, ৩৬ হেক্টর মরিচ এবং ২০ হেক্টর সরিষার ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

বাগেরহাট জেলা মৎস্য কর্মকর্তা খালেদ আনক জানান, জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৭ হাজার ২৩৪টি মাছের ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে মাছ চাষীদের প্রায় ২ কোটি ৯৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুতের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মনিরুজ্জামান খান বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে পল্লী বিদ্যুতের প্রায় ৬০ থেকে ৭০টি বৈদ্যুতিক খুটি উপড়ে পড়েছে। এছাড়া জেলার প্রতিটি উপজেলা পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ লাইন ছিড়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। 

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ জানান, বাগেরহাটে ৪৪ হাজার ৫৬৩টি ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এছাড়া বেশকিছু ফসলি জমি ও মাছের ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একই সঙ্গে নিহত দুই পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হয়েছে।

ওডি/এসএএফ 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড