• বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঝালকাঠির আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে খিচুড়ি বিতরণ

  ঝালকাঠি প্রতিনিধি

০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:১৮
আশ্রয়কেন্দ্রে আসা মানুষগুলো
আশ্রয়কেন্দ্রে আসা মানুষগুলো (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাব পড়তে শুরু করেছে দেশের দক্ষিণের জনপদ ঝালকাঠি জেলায়। ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার আশঙ্কায় নৌ ও স্থলপথে নদী তীরবর্তী বাসিন্দাদের সচেতন করতে মাইকিং করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রিতদের দুপুরে খিচুড়ি দেওয়া হয়েছে। 

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাবে শনিবার সকাল ১১টা থেকে ভারী বৃষ্টি ও দমকা বাতাস বইতে শুরু করছে। সকাল গড়িয়ে দুপুর পেরিয়ে সময় অতিবাহিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আবহাওয়ার অবনতি হতে থাকে। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে ঝালকাঠির সুগন্ধা, বিষখালী ও হলতা নদীতে সকল ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। লঞ্চ টার্মিনলাল থেকে নদীর ওপারে নিয়ে নিরাপদ স্থানে নোঙ্গর করে রাখা হয়েছে।

এ দিকে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে তথ্য অফিস ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি এ প্রচারাভিযান পরিচালনা করছে। ঝুঁকিপূর্ণ স্থানের বাসিন্দাদের জান-মাল রক্ষার্থে পার্শ্ববর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে অথবা নিরাপদ পাকা ভবনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে জনসাধারণকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ মোকাবিলার জন্য ঝালকাঠি জেলায় প্রায় ৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবক, ৩৭টি মেডিকেল টিম ও শুকনো খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঝালকাঠি জেলার ২৯টি স্থায়ী সাইক্লোন শেল্টার ও ৪৫টি অস্থায়ী সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এসব সাইক্লোন সেল্টারের ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পূর্বেই এই আশ্রয়কেন্দ্রগুলিতে মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। সন্ধ্যার দিকে আশ্রিতদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রি বিতরণ করা হবে।

ইতোমধ্যে যারা আশ্রয়কেন্দ্রে এসে পৌঁছেছেন তাদের জন্য দুপুরে খিচুড়ি দেওয়া হয়েছে। সন্ধ্যায় তাদের শুকনো খাবার দেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে। আবহাওয়া স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আশ্রিতরা পুনর্বাসিত থাকবেন বলেও জানান তিনি।

শনি ও রবিবার জেলা প্রশাসন, জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও ফায়ারকর্মীসহ সরকারি কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করতে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। সেই সঙ্গে এদিনগুলোতে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। এছাড়াও যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে- প্রাথমিক বিদ্যালয়, পাকা ভবন, মেডিকেল টিম ওষুধপত্র, শুকনো খাবার ও রেড ক্রিসেন্টকর্মীসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কর্মীদের।

জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী জানান, জেলায় ৭৪টি সাইক্লোন শেল্টার সেন্টার, স্কুল-কলেজ প্রস্তুত রাখা  হয়েছে। সেই সঙ্গে জেলা পর্যায়ে সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। প্রতিটি উপজেলায় একটি করে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।  

জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানতে পারে এমন আশঙ্কায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্বাস্থ্য বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের ছুটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জান-মালের নিরাপত্তা রক্ষার্থে চাল এবং শুকনা খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সাইক্লোন শেল্টার, পাকা শিক্ষা ভবন, মসজিদ, মন্দির খুলে আশ্রয় নেওয়ার উপযোগী করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে আবহাওয়ার গতিবিধি অনুযায়ী মাইকিং ও প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে জনসাধারণকে সতর্ক করা হচ্ছে। তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য কন্ট্রোল রুম ০৪৯৮৬২২৩৩ এবং ০১৭০৫৪১১০০৫ নম্বরটি সচল থাকবে বলেও জানান তিনি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদ হাসান বলেন, দুর্যোগকালীন দুষ্কৃতকারীরা যাতে কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে এজন্য পুলিশ সুপার কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ (কন্ট্রোল রুম) ০১৭৭১৫৩৫১৭৮, ০৪৯৮৬৩২১০ এবং ৯৯৯ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

সিভিল সার্জন প্রতিনিধি ও স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম কুমার দাস বলেন, জেলার ৩২টি ইউনিয়নে ৩২টি, চার উপজেলায় চারটি এবং সদর হাসপাতালে একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। যাতে দুর্যোগকালীন এবং পরবর্তী সময়ে চিকিৎসাসেবা দেওয়া যায়।

জেলা রেডক্রিসেন্ট ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পান্না বলেন, রেড ক্রিসেন্টের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে। যথাসময়ে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিতে পারব। যুব রেড ক্রিসেন্টের মাধ্যমে জনসাধারণকে সচেতন করা হবে।

ওডি/ এফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড