• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’: আতঙ্কে পর্যটকশূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত

  কক্সবাজার প্রতিনিধি

০৮ নভেম্বর ২০১৯, ২০:১২
পর্যটকশূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত
পর্যটকশূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত (ছবি : দৈনিক অধিকার)

কক্সবাজারে চলছে এখন পর্যটন মৌসুম। সপ্তাহের প্রতি শুক্রবার পর্যটকে ভরপুর থাকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের প্রতিটি পয়েন্ট। হোটেল-মোটেলগুলোতে থাকে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়। শহরের প্রধান প্রধান বিনোদন কেন্দ্র, শপিং মলে পর্যটকদের ঢল নামে পছন্দের বিভিন্ন জিনিসপত্র কিনতে। কিন্তু এ শুক্রবার (৮ নভেম্বর) শহরের বিভিন্ন পর্যটক স্পট ঘুরে পর্যটকের দেখা মেলেনি।

বৈরী আবহাওয়া এবং বঙ্গোপসাগরে ৭ নম্বর সতর্ক সংকেতের কারণে পর্যটকশূন্য হয়েছে বলে জানিয়েছেন পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ীরা। ফলে পর্যটন মৌসুমের শুরুতে ব্যবসায়ীদের মনে যে আশার সঞ্চার হয়েছিল তা মলিন হয়ে যাচ্ছে অপ্রত্যাশিত পর্যটক খরায়। তবে হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষ বলছে, পর্যটকদের কক্সবাজারমুখী করতে বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের একটি জনপ্রিয় স্থান সুগন্ধা পয়েন্ট। কিছুদিন আগেও পর্যটকদের পদভারে মুখরিত ছিল এ পয়েন্টটি। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে এখন পর্যটক শূন্য। শুধু সুগন্ধা পয়েন্ট নয়, সৈকতে ছয়টি পয়েন্টসহ চার শতাধিক হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস, কটেজ, রিসোর্ট ও বার্মিজ মার্কেট এলাকায় নেয় পর্যটকদের ভিড়। এমন পরিস্থিতিতে হতাশা ও আশঙ্কার মধ্যে দিন কাটছে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের।

এ অবস্থায় হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ডায়মন্ড প্যালেস গেস্ট হাউস মালিক আবুল কাশেম সিকদার বলেন, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ কারণে কক্সবাজার পর্যটকশূন্য হয়ে গেছে। পর্যটকদের কক্সবাজারমুখী করার জন্য আমরা বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করেছি।

ওডি/ এফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড