• সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নড়াইলে জাপার দু-গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ৫

  নড়াইল প্রতিনিধি

০৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:১৫
নড়াইল
দু-গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

নড়াইল জেলা জাতীয় পার্টির বর্তমান সভাপতি ও সাবেক সভাপতির সমর্থকদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় লোহাগড়ার সিএন্ডবি চৌরাস্তা (কুন্দসী) এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

জাতীয় পার্টির পরিচয়ে একদল লোক সমাবেশ করার সময় জেলা জাতীয় পার্টির বর্তমান সভাপতি অ্যাড. ফায়েকুজ্জামান ফিরোজের সমর্থকরা বাধা প্রদান করলে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নড়াইল জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাড. ফায়েকুজ্জামান ফিরোজের নেতৃত্বে শুক্রবার বেলা ১১টায় কুন্দসী সরকারি প্রাইমারী স্কুলের পাশে দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে যৌথ কর্মী সম্মেলন চলছিল। ওই কর্মী সম্মেলন শেষে নেতৃবৃন্দ জানতে পারেন সিএন্ডবি স্ট্যান্ডের পাশে জাতীয় পার্টির ব্যানার ব্যবহার করে জাতীয় পার্টি থেকে বিভিন্ন অভিযোগে বিতাড়িত-বহিষ্কৃত কয়েকজন এনপিপির (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি) সমর্থক সমাবেশ করছে। এ সময় নড়াইল জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাড. ফায়েকুজ্জামান ফিরোজের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা তখন সিএন্ডবি স্ট্যান্ডের ওই সভা স্থলে আসেন।

এ সময় তিনি কর্তব্যরত পুলিশের কাছে জাতীয় পার্টি থেকে বিতাড়িত-বহিষ্কৃতদের ওই সভা বন্ধ করার দাবি জানান।

এ সময় জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি শরীফ মুনির হোসেনের সমর্থকরা বর্তমান সভাপতি অ্যাড. ফিরোজের সমর্থকদের উপর লাঠি-সোটা নিয়ে হামলা চালায়। ওই সময় দুপক্ষে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে দুপক্ষের অন্তত ৪-৫ জন আহত হয়েছেন। আহতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সভাপতি অ্যাড. ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ বলেন, শরীফ মুনির হোসেন জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি ছিলেন। তিনি এখন জাতীয় পার্টি থেকে বহিষ্কৃত-বিতাড়িত। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শরীফ মুনির হোসেনসহ কয়েকজনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন এনপিপি (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি)তে যোগ দেন। এখন ওই সব নেতাদের সাথে জাতীয় পার্টির কোনো সম্পর্ক নেই।

এদিকে, সাবেক সভাপতি শরীফ মুনির হোসেন পক্ষের নেতা আবুল  হাসান চঞ্চল বলেন, আমরাই জাতীয় পার্টি। আমরা সভা করছিলাম। সভায় বর্তমান সভাপতির সমর্থকরা বাধা প্রদান করায় বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

লোহাগড়া থানার ওসি (তদন্ত) আমানুল্লা-আল বারী বলেন, পুলিশ সুপারসহ লোহাগড়া থানা পুলিশের অনুমতি নিয়ে কয়েকজন লোক জাতীয় পার্টি পরিচয়ে সিএন্ডবি স্ট্যান্ডে সভা-সমাবেশ করছিলেন। এ সময় জেলা জাতীয় পার্টির বর্তমান সভাপতি ও তার সমর্থকরা ওই সভায় বাধা দিলে বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ওডি/এমবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড