• সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সিরাজগঞ্জে ২৮টি অস্ত্রসহ আটক ২

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৪৯
সিরাজগঞ্জ
আটক অস্ত্র কারবারি ও উদ্ধারকৃত অস্ত্র (ছবি : দৈনিক অধিকার)

সিরাজগঞ্জে অভিযান চালিয়ে ২৮টি দেশীয় তৈরি অস্ত্র, একটি এলজি ও কার্তুজসহ দুই অস্ত্র কারবারিকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপারের হলরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ দাউদ, ডিবি ওসি মো. ওহেদুজ্জামান, প্রমুখ।

এর আগে বুধবার (৬ নভেম্বর) গভীর রাতে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কাদাই ও পাবনা সদর থানাধীন ভাওডাঙ্গা কালুরপাড়া এলাকা থেকে অস্ত্রগুলো উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা হলো- পাবনা সদর থানার খয়ের বাগান বাজার এলাকার আব্দুল হেলাল খাঁর ছেলে মিজানুর রহমান মিজান (১৯) ও ভাওডাঙ্গা কালুরপাড়া এলাকার প্রয়াত ইমান আলীর ছেলে মো. আব্দুল ওহাব (৩৫)।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ ও বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধারে দেশব্যাপী বিশেষ অভিযান চলছে। এরই অংশ হিসেবে বুধবার গভীর রাতে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কাদাই সিলভার ডেলপার্কের সামনে অবৈধ অস্ত্র বিক্রি হচ্ছে এমন তথ্যে সেখানে অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। এ সময় একটি দেশীয় তৈরি বন্দুক, একটি দেশীয় তৈরি এলজি অস্ত্র ও একটি কার্তুজসহ আব্দুল ওহাব ও মিজানুর রহমানকে আটক করা হয়।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যে মতে পাবনা জেলা পুলিশের সহযোগিতায় পাবনার সদর থানাধীন ভাওডাঙ্গা কালুরপাড়া এলাকার আব্দুল ওহাবের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২৭টি দেশীয় তৈরি বন্দুক উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী আরও বলেন, আটককৃতরা দীর্ঘদিন ধরে বাণিজ্যিকভাবে অস্ত্র তৈরি করে বিক্রি করে আসছিল।

ওডি/এমবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড