• মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বিসিবিকে মাহমুদউল্লাহর ধন্যবাদ

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৩ জানুয়ারি ২০২০, ২০:২১
চট্টগ্রামের কাপ্তান মাহমুদউল্লাহ
চট্টগ্রামের কাপ্তান মাহমুদউল্লাহ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

বেতন-ভাতাসহ ১১ দফা দাবি নিয়ে গেল অক্টোবরে আন্দোলন করেছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। আন্দোলনের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাদের দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। সে অনুযায়ী ধীরে ধীরে ক্রিকেটারদের দাবিগুলো পূরণ করছে বিসিবি। যার বড় প্রমাণ মিলল গতকাল (১২ জানুয়ারি) নতুন বছরে বিসিবির প্রথম বোর্ড সভা শেষে। বোর্ড মিটিং শেষে বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন টেস্টে ম্যাচ ফি প্রায় ৭২ শতাংশ বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) ঢাকা-চট্টগ্রামের এলিমেনেটর ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন চ্যালেঞ্জার্স কাপ্তান মাহমুদউল্লাহ। সাংবাদিকদের কাছে ম্যাচ ফি বৃদ্ধির সংবাদ শুনে সঙ্গে সঙ্গে বলে ওঠেন ‌‌‘আলহামদুলিল্লাহ’। তারপর জাতীয় দলের সিনিয়র এ সদস্য বলেন, ‘আমি মনে করি এটা খুবই ইতিবাচক ব্যাপার। আমাদের বোর্ডকে ধন্যবাদ এই জিনিসটা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমার মনে হয় অবশ্যই টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি সবারই আগ্রহ হয়তো বাড়বে। আমি বলছি না যে আগ্রহ আগে ছিল না। কিন্তু দিনশেষে এটা আমাদের রুজি রুটি, আমাদের পারিশ্রমিক এখান থেকে পাই। আমার মনে হয় ছেলেরা এখান থেকে আরও উৎসাহ পাবে। তো আমরা খুব স্বাগত জানাই এই সিদ্ধান্তকে।'

তিন মাস আগের ১১ দফা দাবি কি পূরণ হচ্ছে? জবাবে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‌‘কিছু তো অবশ্যই। এটা আমাদের ক্রিকেটের জন্য ভালো আমাদের ক্রিকেটারদের জন্যও ভালো। আমি আগে যেটা বললাম বোর্ডের সিদ্ধান্তটাকে স্বাগত জানাই। দিনশেষে যেটা বললাম পারিশ্রমিকের একটা বিষয় থাকে। আমাদের পরিবার, রুটি রুজি। এটা আমাদের সবার জন্যই ভালো।’

পাকিস্তান সফর প্রসঙ্গে কী ভাবছেন তিনি। ‌‘পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার ব্যাপারটা আমার কাছে মনে হয় খুব স্পর্শকাতর ইস্যু হয়তোবা। এ বিষয়ে মন্তব্য করা ঠিকনা আমার মনে হয় বোর্ড বা ম্যানেজমেন্টের সাথে যদি আমার কথা হয় আমি তাদের আমার মতামত দেব। কিন্তু আমি মিডিয়াতে এই মুহূর্তে এ ব্যাপারে কিছু শেয়ার করতে চাচ্ছি না।’ বলেন মাহমুদউল্লাহ।

মাশরাফির দীর্ঘ দিনের সতীর্থ মাহমুদউল্লাহ। মাশরাফির অবসরটা একান্ত তার সিদ্ধান্ত বলে মনে করেন রিয়াদ। তিনি মাশরাফির অবসর প্রসঙ্গ বলেন, ‌‘আমি যেটা চিন্তা করি যে এটা সম্পূর্ণ মাশরাফি ভাইয়ের সিদ্ধান্ত, দুই একবার উনার সাথে আমার কথা হয়েছে। কিন্তু এসব শেয়ার করার মতো না কারণ এটা ব্যক্তিগত বিশ্বাসেরও একটা বিষয় আছে। এটা উনাকে না বলে শেয়ার করাটা ঠিক হবে না। দিনশেষে এটা উনারই সিদ্ধান্ত।

আমরা ক্রিকেটটা শুরু করি ভালোবেসে, ক্রিকেটকে উপভোগ করি। এখন হয়তো এটা আমার পেশা হয়েছে। আমি শুরু থেকে কখনোই চিন্তা করিনি শুরু থেকে যে আমি ক্রিকেটারই হব। আমি ভালোবাসছি, পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলা করতাম আর এখন এটা আমার পেশায় পরিণত হয়েছে। তো ভালোলাগা ভালোবাসা এরপর এটা পেশা। তো যখন আমি কারও কথায় খেলা শুরু করিনি কারও কথায় ছাড়ার পক্ষপাতিত্বও আমি করি না। আমি যদি চিন্তা করি যে এখন আমার পক্ষে আর ক্রিকেট খেলা সম্ভব না তো আমি খেলব না। কিন্তু আমি কারও কথায় ছাড়ব কেন? যেহেতু এটা আমার একান্ত নিজস্ব বিষয়, এটার দায়ভারটা আমাকেই দেওয়া উচিত। আমি জিনিসটাকে এভাবেই দেখি।’

ওডি/এসএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড