• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন

যুদ্ধ ও সাহসিকতার গল্পের নাম ‘জননী সাহসিকা’

  বিনোদন ডেস্ক

১৮ মে ২০১৯, ১২:৫৮
ছবি
ছবি : ‘জননী সাহসিকা’ নাটকটির কেন্দ্রীয় চরিত্র অ্যানা ফিয়ার্লিং এর ভ্রাম্যমাণ ক্যান্টিন

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরীক্ষণ থিয়েটারে গতকাল (১৭মে) বৃষ্টিস্নাত সন্ধ্যায় প্রদর্শিত হলো জার্মান নাট্যকার বের্টোল্ট ব্রেখটের ‘জননী সাহসিকা’। নাটকটি রচিত হয়েছে ইউরোপের ত্রিশ বছরের ধর্ম যুদ্ধের পটভূমির উপর ভিত্তি করে। নাটকটির নির্দেশনায় ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগের প্রভাষক সঞ্জীব কুমার দে এবং অনুবাদ করেছেন কবীর চৌধুরী। 

‘জননী সাহসিকা’ নাটকটির কেন্দ্রীয় চরিত্র অ্যানা ফিয়ার্লিং একটি ভ্রাম্যমাণ ক্যান্টিন মালিক। যুদ্ধের ধ্বংসলীলার মধ্যে অসীম সাহসের সঙ্গে নিজের মালামাল সে যেভাবে বাঁচিয়েছে, তারই স্বীকৃতিস্বরূপ লোকজন তার উপাধি দেয় ‘জননী সাহসিকা’। তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে। বড় ছেলে বেপরোয়া ও দুঃসাহসী নাম এলিফ। তবে ছোট ছেলে সুইস পনির অত্যন্ত সৎ। তরুণী মেয়ে কাট্রিন অত্যন্ত সংবেদনশীল ও অনুভূতিপ্রবণ, কিন্তু বোবা। পরিবারের পঞ্চম সদস্য হলো জীবিকা নির্বাহের মূল অবলম্বন তার খাবার গাড়িটি।

নাটকছবি : জননী সাহসিকা’ নাটকে যুদ্ধের ধ্বংসলীলার মধ্যে টিকে থাকার লড়াই 

সন্তানরা খাবারের গাড়ি টানে, মা ও তিন সন্তান গাড়ি নিয়ে এক অঞ্চল থেকে অন্য অঞ্চলে যায়, এক দেশে থেকে অন্য দেশে। যুদ্ধের ডামাডোলের মধ্যে মা সৈন্যদের কাছে খাবার ও অন্যান্য তৈজসপত্র বিক্রি করে পরিবারের সবার জীবিকার সংস্থান করেন, সযত্নে ও চাতুর্যর সঙ্গে তিন সন্তানকে বাজ পাখির ন্যায় যুদ্ধের আঁচ থেকে দূরে রাখতে চায় কিন্তু সে সতচেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি।

নাটক ছবি : জননী সাহসিকা’ নাটকের প্রতিবাদি একটি দৃশ্য

যুদ্ধের সর্বনাশা ছোবলে জননী সাহসিকা একে একে তার তিন সন্তানকেই হারায়। যুদ্ধ তার জীবনের সবকিছু হরণ করে কেবল অবশিষ্ট থাকে তার খাবারের গাড়ি। জীবিকার তাগিদে সে একাই টেনে বেড়ায় খাবারের গাড়িটি। অতঃপর সেই সর্বভূক যুদ্ধ আর সাহসিকার জীবন সমান্তরালে এগিয়ে চলা।

নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাজেদ আহমেদ, ইমরুল কায়েস মুন্না, সৈয়দা কাজরিয়া রহমান, ললিতা রায়, তানিয়া সুলতানা, মো. এনামুল হাসান কাওছার, আকাশ সরকার, ইমরান হাবীব, শ্রেয়শ্রী সরকার, ইমরান হোসেন, মো. আহসান হাবীব, মাহফুজার রহমান, শাহ মুহম্মদ তাজ, মাহাবুবুর রহমান, সৈয়দা হাফসা ফারিহা, মারুফা মুন্নি, সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

নাটকছবি : নাটকের চরিত্র কর্নেল ও এলিফ

উল্লেখ্য, নাটকটি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগের প্রযোজনা। এ প্রতিষ্ঠানের দ্বিতীয় আবর্তন (২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষ) তাদের তৃতীয় বর্ষ পরীক্ষা প্রযোজনার অংশ হিসেবে ‘জননী সাহসিকা’ নাটকের প্রথম মঞ্চায়ন করেছে ৪ মে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে নাটকটির উদ্বোধনী প্রদর্শনীসহ মোট চারটি প্রদর্শনী করে। এরপর গত ১৬মে সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির পরীক্ষণ থিয়েটার মিলনায়তনে নাটকটির পঞ্চম প্রদর্শনী ১৭মে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ষষ্ঠ বারের মতো মঞ্চায়ন হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড