• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

মৃণাল সেন পাড়ি জমালেন না ফেরার দেশে

  অধিকার ডেস্ক    ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৩৯

মৃণাল সেন
ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি পরিচালক মৃণাল সেন (ছবি: সংগৃহীত)

ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি পরিচালক মৃণাল সেন পাড়ি জমালেন না ফেরার দেশে। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। তিনি আজ (৩০ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় নিজের বাসভবনেই মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। তিনি একাধারে ছিলেন পরিচালক, চিত্রনাট্যকার ও লেখক।

মৃণাল সেন ১৯২৩ সালের ১৪ মে বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্মগ্রহণ করেন। এ দেশের আলো-হাওয়া গায়ে মেখেই কেটেছে তার কৈশোর। তবে দেশ বিভাগের পর সপরিবারে পাড়ি জমান কলকাতায়। সেখানে গিয়ে স্কটিশ চার্চ কলেজ এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিদ্যা পড়াশোনা করেন তিনি। ছাত্রাবস্থায় মৃণাল সেন কমিউনিস্ট পার্টির সাংস্কৃতিক শাখার সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করবার পর তিনি একজন সাংবাদিক, একজন ওষুধ বিপননকারী এবং চলচ্চিত্রে শব্দ কলাকুশলী হিসাবে কাজ করেছেন।

‘রাতভোর’ সিনেমা পরিচালনার মাধ্যমে মৃণাল সেন চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন। চলচ্চিত্রটি ১৯৫৫ সালে মুক্তি পায়। প্রথম ছবিটিতে অতটা সাফল্য না পেলেও তাকে খ্যাতি এনে দিয়েছে ‘নীল আকাশের নীচে’ ও ‘বাইশে শ্রাবণ’। তিনি বাংলা ছাড়াও হিন্দি, উড়িষ্যা ও তেলেগু ভাষায় ছবি নির্মাণ করেছেন। তার পরিচালিত উল্লেখযোগ্য ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘বাইশে শ্রাবণ’, ‘নীল আকাশের নীচে’, ‘মৃগয়া’, ‘আকালের সন্ধানে’, ‘ভুবন সোম’, ‘কলকাতা-৭১’, ‘খারিজ’, ‘পদাতিক’, ‘আকাশ কুসুম’ প্রভৃতি।

চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ভারতের সর্বশ্রেষ্ঠ সম্মান দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার ও পদ্মভূষণ পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। এ ছাড়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন এই কিংবদন্তি পরিচালক।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড